শুক্রবার, ৩১ Jul ২০২০, ০৭:২৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
গোমস্তাপুরে আল-মদিনা ক্লিনিকে ভুল চিকিৎসায় প্রসূতির মৃত্যুর অভিযোগ টেকনাফে বন্দুকযুদ্ধে ইউপি সদস্যসহ দুই মাদক কারবারি নিহত নওগাঁয় জেল থেকে বেরিয়ই ফিল্মি স্টাইলে মারপিট, দোকান ভাংচুর ও লুটপাট মিরপুর প্রেসক্লাবের নতুন সভাপতি গোলাম কাদের ও সাধারণ সম্পাদক মীর পলাশ কুষ্টিয়ায় নৈরাজ্যের বিরুদ্ধে সম্পাদকদের ক্ষোভ প্রকাশ সাতক্ষীরার দেবহাটার ইজিবাইক চালক মনিরুল হত্যার আসামীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবী  সবজি বোঝাই ট্রাকে অস্ত্রের চালান! নওগাঁয় লিটন ব্রিজের একাংশ দখল ভ্রাম্যমান দোকানে: কর্তৃপক্ষ নিরব সাতক্ষীরা ভোমরা স্থলবন্দরের করোনার কারণে দেখা দিয়েছে চরম সংকট  চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুব, সহ-সভাপতি জোবদুল ও সম্পাদক অলক
মধুখালীতে নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে নিম্ন মানের মিষ্টি দধি

মধুখালীতে নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে নিম্ন মানের মিষ্টি দধি

তহিদুল ইসলাম : ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার বাগাট বাজারে “বাগাট কৃষ্ণ দধি ঘর” নামে ওই এলাকার শ্রী নিতাই চন্দ্র ঘোষ ওই বাগাট বাজারে দীর্ঘ দিন যাবৎ অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশে তৈরী হচ্ছে নিম্ন মানের মিষ্টিসহ বিভিন্ন খাদ্য দ্রব্য। এতে ব্যবহার করা হচ্ছে নিম্নমানের ওয়েষ্টেজ ময়দা, পঁচাতৈল, এবং চিনিসহ বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল জাতীয় দ্রব্য যা মানব দেহের জন্য ক্ষতিকারক যেমন রং ছেকারিন হাইড্রোজ নামক সোডা পরিমানের চেয়ে অধিক মাত্রায় ব্যাবহার করা হচ্ছে। সকল খাদ্যদ্রব্য হাতে হ্যান্ডগ্লাবস ছাড়াই তৈরী বাড়ীর মধ্যে ফ্লরে পাটি বিছিয়ে। যার আশে পাশে ময়লা আর্বজনা ধুলো বালি খাদ্যের মধ্যে পড়ে আছে মশা মাছি এবং সকল মিষ্টি তৈরী করে ঢাকনা বিহীন রাখা রয়েছে।

এ সকল খাদ্য অস্বাস্থ্যকর নোংরা পরিবেশের তৈরিতে মানা হচ্ছেনা পরিবেশ পরিছন্নতা। এরা বিএসটিআই অনুমদোন ছাড়াই খাদ্য তৈরী করে ফরিদপুর, মধুখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় পাইকারী ও খুচরা মূল্যে বিক্রয় করে আসছে। এ বিষয়টি জানার জন্য কারখানার মালিক শ্রী নিতাই চন্দ্র ঘোষের সাথে কথা বললে তিনি জানান আমরা কাগজপত্র ছাড়াই এসকল খাদ্য দ্রব্য তৈরী করে থাকি এবং দীর্ঘ দিন যাবৎ বাজার জাত করে আসছি। কিন্তু কেউ আমাদেরকে কোন দিন কিছু বলে নাই, তবে মধুখালী থেকে কিছু দিন পূর্বে একটি ট্রেড লাইসেন্স করে ব্যাবসা করে আসছি। তিনি আরও জানান এ সকল খাদ্য তৈরিতে কি কি কাগজপত্র ব্যবহার করতে হয় তা আমাদের জানা নেই।

এ ব্যাপারে স্থানীয় চেয়ারম্যান বলেন আমি কয়েক বার এদের নোংরা পরিবেশে এ খাবার গুলো তৈরি করতে নিষেধ করা হলেও এরা কাউকে তোয়াক্কা করছেনা। খাবার গুলো নোংরা পরিবেশে তৈরি করছে যা মানবদেহের জন্য খুবই হুমকিস্বরূপ। মধুখালী থানার ওসির কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান আসলে এ ধরনের কারখানা রয়েছে বিষয়টি আমার জানা নেই। তবে এরা যদি অবৈধ ভাবে কোন কেমিক্যাল খাবারে ব্যাবহার করে অথবা খাবার অনুউপযোগী খাদ্য তৈরী করে বাজার জাত করে তাহলে এদের অবশ্যই আইনের আওতায় আনা হবে। আরও বিস্তারিত আসিতেছে চ্যানেল বাংলা টিভিতে…………..।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2018 khoborbangladesh.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com