মঙ্গলবার, ১২ জানুয়ারী ২০২১, ০৬:৫৫ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মিরপুরে সড়ক বাতি প্রজ্বলনের শুভ উদ্বোধন বাউফলে বন কর্মকর্তা আবুল কালামের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ চুরির অভিযোগ. এম.জাফরান হারুন, নিজস্ব প্রতিনিধি পুলিশ সদস্যকে মারধর করায় আ.লীগ নেতাসহ আটক ৫ পুলিশের আইনগত ক্ষমতা থাকতে পেশী শক্তি কেন, প্রশ্ন আইজিপির শাহ্আলী থানার এস.আই মাসুদ রানার রমরমা ফুটপাত বানিজ্য ঢাকা-১৬ আসনের এমপি আলহাজ্ব ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ্ ৫৬তম জন্মদিন পালিত মিরপুরের নামধারী সাংবাদিক চাঁদাবাজ বাবুলের বিরুদ্ধে মিরপুর প্রেসক্লাবের মানববন্ধন পল্লী দারিদ্র্য বিমোচন ফাউন্ডেশন (পিডিবিএফ)-এর নতুন ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুহম্মদ- মউদুদউর রশীদ সফদার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধে পিডিবিএফ এর নব যোগদানকৃত ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পুষ্পস্তবক অর্পণ পল্লবীতে চাঁদা না পেয়ে ব্যবসায়ীসহ তিনজনকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টা
বাউফলে বন কর্মকর্তা আবুল কালামের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ চুরির অভিযোগ. এম.জাফরান হারুন, নিজস্ব প্রতিনিধি

বাউফলে বন কর্মকর্তা আবুল কালামের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ চুরির অভিযোগ. এম.জাফরান হারুন, নিজস্ব প্রতিনিধি

পটুয়াখালী

পটুয়াখালী বাউফলে বন কর্মকর্তা আবুল কালামের বিরুদ্ধে রাতের আধাঁরে সরকারি গাছ চুরি করে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার কালিশুরী থেকে বাহিরচর এলাকার প্রকল্পের উপকারভোগী সমিতির সভাপতি জলিল মাস্টার বন বিভাগের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ডিসেম্বর রাত সাড়ে ৮টায় উপজেলা বন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবুল কালামসহ ৭/৮ জন লোক কালিশুরী বন্দর থেকে বাহিরচর সড়কের পাশে সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের শোভাবর্ধনকারী বেশ কিছু মূল্যবান কাছ কেটে ফেলে। গাছগুলো স্থানীয় পরিবহনে করে ট্রলারে ভরার সময় প্রকল্পের উপকারভোগী সমিতির সভাপতি জলিল মাস্টারসহ অন্যান্য সদস্যরা দেখে ফেলে এবং সাথে সাথে গাছ নিতে বাঁধা দেয়। এ সময় বন কর্মকর্তা আবুল কালাম ট্রলারভর্তি গাছ নিয়ে দ্রুত গতিতে চলে যায়। পরের দিন সকালে বন কর্মকর্তা আবুল কালাম এসে গাছ নিতে বাঁধাদানকারীদের নামে মামলা দেওয়াসহ জীবননাশের হুমকি দেয় বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। আবুল কালামের বাড়ি ওই এলাকার চাঁদকাঠী গ্রামে। এর আগেও ওই উপজেলায় বনকর্তার দায়িত্বে ছিলেন এবং ওই সময়ও তার বিরুদ্ধে গাছ চুরির অভিযোগ ছিলো। তার সাথে বিভিন্ন এলাকার সন্ত্রাসী, চোরাকারবারী সাথে সখ্যতা আছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েছে। গত ২৯ ডিসেম্বর পটুয়াখালী জেলা বন কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করার পরে ভয়ে অভিযোগকারী ভয়ে এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে জানা গেছে। আব্দুল জলিলের পরিবার আরও জানায় সামাজিক বনায়ন প্রকল্পের সুফলভোগীরা আবুল কালামের মামলা হয়রানির আতংকে রয়েছেন। অভিযোগের বিষয়ে বাউফল বন কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আবুল কালাম তার মুঠোফোনে (০১৭১২০১৫০৮৫) বলেন, ওই গাছগুলো স্থানীয় চেয়ারম্যানের হেফাজতে আছে। আমি মোটরসাইকেলে চেয়ারম্যানের কাছে যাচ্ছি। এ বিষয়ে বিকালে আপনার সাথে কথা হবে বলে ফোন রেখে দেয়। অভিযোগের তদন্ত অগ্রগতি বিষয়ে জেলা বন কর্মকর্তা আমিনুল ইসলাম বলেন, আবুল কালামের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে। দোষী সাব্যস্ত হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2018 khoborbangladesh.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com