ঢাকা ১১:২১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মাগুরা মহম্মদপুর লড়াই হবে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর

এম জাকির হোসেন, মাগুরা থেকে ঘুরে এসে : মাগুরা জেলা, মহম্মদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মাঠে সরব প্রচার-প্রচারনায় প্রার্থীরা। তবে ভোটে আগ্রহ দেখাচ্ছেনা সাধারন ভোটাররা। তারপরও ভোটারদের দৃষ্টি আর্কষনে শিডিউল করে প্রতিদিন এলাকা টার্গেট করে উঠান বৈঠক ভোট প্রার্থনা করছেন প্রার্থীরা। মাদক, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসমুক্ত উপজেলা গড়তে এলাকা ঘুরে ভোট ও দোয়া চাইছেন সাধারন ভোটারদের কাছে। দিচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি ও অঙ্গিকার। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহম্মদপুর উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ১১ প্রার্থী প্রতিদন্ধিতা করছেন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে এ্যাডঃ আব্দুল মান্নান, স্বতন্ত্র দোয়াত কলম প্রতীকে আবু আব্দুল্লাহেল কাফি, আনারস প্রতীকে মুক্তিযোদ্ধা জাফর সাদিক ও মোটর সাইকেল প্রতীকে কে.এম ফারুকুজ্জামান আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে লড়াই করছেন।
নির্বাচনে চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পাশা-পাশি প্রচার-প্রচরনায় থেমে নেই নারী প্রার্থীরাও। নারী অধিকার বাস্তবায়নের দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে ঘুরছেন ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে। নির্বাচনে প্রার্থীর মধ্যে পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জয়-পরাজয় নিয়ে ভোটারগন বেশি মাথা না ঘামালেও আলোচনার ঝড় তুলছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীদের হার জিত নিয়ে।
এখানে নির্বাচনী প্রতিদন্ধিতায় মুলত চেয়ারম্যান পদে চার জন প্রার্থী মাঠে থাকলেও এখানে লড়াই হবে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আব্দুল মান্নান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা আবু আব্দুল্লাহেল কাফির মধ্যে। এমনটাই মনে করছেন এখানকার রাজনৈতিক মহল। নৌকা প্রতীক এ্যাডঃ আব্দুল মান্নানের পক্ষে আওয়ামীলীগের উল্লেখযোগ্য নেতা-কর্মীরা একত্রিত হয়ে প্রতিদিনই চালাচ্ছেন উঠান বৈঠক ও গনসংযোগ। নৌকাকে জয়ী করার জন্য চালাচ্ছেন ঘাম ঝরা পরিশ্রম ও কৌশল। অপরপক্ষে স্বতন্ত্র দোয়াত কলম প্রতীক আবু আব্দুল্লাহেল কাফির পক্ষেও আওয়ামীলীগের একটা অংশ মাঠে নেমে কাজ করছেন প্রকাশ্যে। তবে ভোটারদের দাবী ভোট সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হলে শেষ পর্যন্ত জয় কার পক্ষে যায় তা আগাম বলা মহা মুশকিল।
নির্বাচনী এ মুহুর্তে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীকে কেন্দ্র করে এখানকার শাসক দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা পড়েছেন কিছুটা দ্বিধা বিভক্তিতে।
৮টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মহম্মদপুর উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ৫২ হাজার ৮শ ৬৬ জন। এর মধ্যে উপজেলার গলাগাছি গ্রামে কাফির জন্ম স্থান ও খালিয়া গ্রামের সাবেক এমপি আব্দুর রসিদ সাহেব ছিলেন নানা সেখানে রয়েছে তার বিরাট একটা ভোট ব্যাংক। যেজন্য নির্বাচনে জয় ছিনিয়ে আনতে আওয়ামীলীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আব্দুল্লাহেল কাফি ওই সংখ্যা গরিষ্ট ভোটার ৮ ইউনিয়নকে প্রধান্য দিয়ে তার নির্বাচনী প্রচার চলছে বেশ জোরেসোরে। তবে থেমে নেই নৌকা প্রতীক আব্দুল মান্নানও। তিনিও কাফির ভোট ব্যাংকে হানা দেওয়ার জন্য চালাচ্ছেন নির্বাচনী নানান কৌশল।
দলীয়সূত্রে জানাগেছে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মান্নান ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতির সাথে জড়িত। তিনি দীর্ঘ বছর ধরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে স্নাতক করেছেন। স্বতন্ত্র দোয়াত কলম প্রতীকে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু আব্দুল্লাহেল কাফি স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও সম্মানীত অধ্যক্ষ হিসাবে পরিচিত।

ট্যাগস

মাগুরা মহম্মদপুর লড়াই হবে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর

আপডেট টাইম : ০৩:৩৯:৫৯ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯

এম জাকির হোসেন, মাগুরা থেকে ঘুরে এসে : মাগুরা জেলা, মহম্মদপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মাঠে সরব প্রচার-প্রচারনায় প্রার্থীরা। তবে ভোটে আগ্রহ দেখাচ্ছেনা সাধারন ভোটাররা। তারপরও ভোটারদের দৃষ্টি আর্কষনে শিডিউল করে প্রতিদিন এলাকা টার্গেট করে উঠান বৈঠক ভোট প্রার্থনা করছেন প্রার্থীরা। মাদক, চাঁদাবাজ ও সন্ত্রাসমুক্ত উপজেলা গড়তে এলাকা ঘুরে ভোট ও দোয়া চাইছেন সাধারন ভোটারদের কাছে। দিচ্ছেন নানান প্রতিশ্রুতি ও অঙ্গিকার। উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মহম্মদপুর উপজেলা থেকে চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ১১ প্রার্থী প্রতিদন্ধিতা করছেন। এদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে এ্যাডঃ আব্দুল মান্নান, স্বতন্ত্র দোয়াত কলম প্রতীকে আবু আব্দুল্লাহেল কাফি, আনারস প্রতীকে মুক্তিযোদ্ধা জাফর সাদিক ও মোটর সাইকেল প্রতীকে কে.এম ফারুকুজ্জামান আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হয়ে লড়াই করছেন।
নির্বাচনে চেয়ারম্যান,ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের পাশা-পাশি প্রচার-প্রচরনায় থেমে নেই নারী প্রার্থীরাও। নারী অধিকার বাস্তবায়নের দৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে ঘুরছেন ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে। নির্বাচনে প্রার্থীর মধ্যে পুরুষ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীদের জয়-পরাজয় নিয়ে ভোটারগন বেশি মাথা না ঘামালেও আলোচনার ঝড় তুলছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীদের হার জিত নিয়ে।
এখানে নির্বাচনী প্রতিদন্ধিতায় মুলত চেয়ারম্যান পদে চার জন প্রার্থী মাঠে থাকলেও এখানে লড়াই হবে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ আব্দুল মান্নান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামীলীগ নেতা আবু আব্দুল্লাহেল কাফির মধ্যে। এমনটাই মনে করছেন এখানকার রাজনৈতিক মহল। নৌকা প্রতীক এ্যাডঃ আব্দুল মান্নানের পক্ষে আওয়ামীলীগের উল্লেখযোগ্য নেতা-কর্মীরা একত্রিত হয়ে প্রতিদিনই চালাচ্ছেন উঠান বৈঠক ও গনসংযোগ। নৌকাকে জয়ী করার জন্য চালাচ্ছেন ঘাম ঝরা পরিশ্রম ও কৌশল। অপরপক্ষে স্বতন্ত্র দোয়াত কলম প্রতীক আবু আব্দুল্লাহেল কাফির পক্ষেও আওয়ামীলীগের একটা অংশ মাঠে নেমে কাজ করছেন প্রকাশ্যে। তবে ভোটারদের দাবী ভোট সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ হলে শেষ পর্যন্ত জয় কার পক্ষে যায় তা আগাম বলা মহা মুশকিল।
নির্বাচনী এ মুহুর্তে নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থীকে কেন্দ্র করে এখানকার শাসক দল ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা পড়েছেন কিছুটা দ্বিধা বিভক্তিতে।
৮টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত মহম্মদপুর উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ১ লক্ষ ৫২ হাজার ৮শ ৬৬ জন। এর মধ্যে উপজেলার গলাগাছি গ্রামে কাফির জন্ম স্থান ও খালিয়া গ্রামের সাবেক এমপি আব্দুর রসিদ সাহেব ছিলেন নানা সেখানে রয়েছে তার বিরাট একটা ভোট ব্যাংক। যেজন্য নির্বাচনে জয় ছিনিয়ে আনতে আওয়ামীলীগ নেতা স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু আব্দুল্লাহেল কাফি ওই সংখ্যা গরিষ্ট ভোটার ৮ ইউনিয়নকে প্রধান্য দিয়ে তার নির্বাচনী প্রচার চলছে বেশ জোরেসোরে। তবে থেমে নেই নৌকা প্রতীক আব্দুল মান্নানও। তিনিও কাফির ভোট ব্যাংকে হানা দেওয়ার জন্য চালাচ্ছেন নির্বাচনী নানান কৌশল।
দলীয়সূত্রে জানাগেছে আওয়ামীলীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুল মান্নান ছাত্রজীবন থেকে রাজনীতির সাথে জড়িত। তিনি দীর্ঘ বছর ধরে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। তিনি ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয় থেকে স্নাতক করেছেন। স্বতন্ত্র দোয়াত কলম প্রতীকে চেয়ারম্যান প্রার্থী আবু আব্দুল্লাহেল কাফি স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা ও সম্মানীত অধ্যক্ষ হিসাবে পরিচিত।