ঢাকা ০৩:৪০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে বাড্ডা থানার অপরাধীদের আতঙ্কের নাম ওসি ইয়াসীন গাজী কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা’র নেতৃত্বে সাজ্জাদ-মোশাররফ স্বামীকে বটি দিয়ে কুপিয়ে খুন করে থানায় স্ত্রীর আত্মসমর্পণ কোটালীপাড়ায় তিন দিনব্যাপী কবি সুকান্ত মেলার উদ্বোধন বেইলি রোডে আগুনে নিহত ৪৬ জয়পুরহাটে ৭ মামলার কুখ্যাত সন্ত্রাসী অস্ত্র ও মাদকসহ র‍্যাবের জালে আটক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজিম উদ্দিনের কোলে শিশু মো. লাকিত হোসেন ধর্ষণ মামলার প্রধান একমাত্র পলাতক আসামি অবশেষে আটক মির্জাগঞ্জে দরিদ্র এক নিঃসন্তান বৃদ্ধের খড়ের গাদায় অগ্নিকাণ্ড

থামছেনা সিংগাইরে কেজির দরে তরমুজ বিক্রি সেন্ডিকেটের নিকট ক্রেতারা জিম্মি

সিংগাইর মানিকগঞ্জ থেকে মঞ্জুরুল ইসলাম রতন

গ্রাম্য প্রবাদ আছে সেজনাল ফল খেলে অনেক অসুখ থেকে বেঁচে থাকা সম্ভব, কিন্ত কি ভাবে খাবে? বর্তমান বাজারে সেজনাল ফলের মধ্যে অন্যতম তরমুজ । যার বাজার সম্পূর্ণ অসাধু ব্যবসায়ী সেন্ডিকেটের কবজায়। বিভিন্ন বাজার ও দোকনে জরিমানা গুনলেও মূল পরিকল্পনায় তারা দৃঢ়। থামছেনা সিংগাইরে কেজির দরে তরমুজ বিক্রি, তারা এক তরমুজ থেকে, ২০০ থেকে ৩০০ টাকা লাভ করতেই হবে। তাইতো তারা পিচ কিনে কেজির দরে বিক্রি করছেন তরমুজ। সিংগাইর উপজেলার বিভিন্ন বাজারে ঘুরে দেখা গেছে এর বাস্তব চিত্র। গরীবতো দুরের কথা মধ্যবৃত্তরাও তরমুজ বাজারে শূন্য। এই ফলটা যেনো সোনার হরিণ, অনেক আফসোস করে দীর্ঘ স্বাশ ফেলে বলছে গরীব দুস্ত ও মধ্যমবৃত্তরাও তরমুজ তুমি কার? প্রশাসন এখনও জোরালো ভুমিকা না রাখলে গরীব মধ্যবৃত্ত শ্রেনীর কাছে প্রিয় ফলটি অধরা রয়ে যাবে।

ট্যাগস

ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে

থামছেনা সিংগাইরে কেজির দরে তরমুজ বিক্রি সেন্ডিকেটের নিকট ক্রেতারা জিম্মি

আপডেট টাইম : ০৭:৫৬:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩০ এপ্রিল ২০২১

সিংগাইর মানিকগঞ্জ থেকে মঞ্জুরুল ইসলাম রতন

গ্রাম্য প্রবাদ আছে সেজনাল ফল খেলে অনেক অসুখ থেকে বেঁচে থাকা সম্ভব, কিন্ত কি ভাবে খাবে? বর্তমান বাজারে সেজনাল ফলের মধ্যে অন্যতম তরমুজ । যার বাজার সম্পূর্ণ অসাধু ব্যবসায়ী সেন্ডিকেটের কবজায়। বিভিন্ন বাজার ও দোকনে জরিমানা গুনলেও মূল পরিকল্পনায় তারা দৃঢ়। থামছেনা সিংগাইরে কেজির দরে তরমুজ বিক্রি, তারা এক তরমুজ থেকে, ২০০ থেকে ৩০০ টাকা লাভ করতেই হবে। তাইতো তারা পিচ কিনে কেজির দরে বিক্রি করছেন তরমুজ। সিংগাইর উপজেলার বিভিন্ন বাজারে ঘুরে দেখা গেছে এর বাস্তব চিত্র। গরীবতো দুরের কথা মধ্যবৃত্তরাও তরমুজ বাজারে শূন্য। এই ফলটা যেনো সোনার হরিণ, অনেক আফসোস করে দীর্ঘ স্বাশ ফেলে বলছে গরীব দুস্ত ও মধ্যমবৃত্তরাও তরমুজ তুমি কার? প্রশাসন এখনও জোরালো ভুমিকা না রাখলে গরীব মধ্যবৃত্ত শ্রেনীর কাছে প্রিয় ফলটি অধরা রয়ে যাবে।