মঙ্গলবার, ১৫ Jun ২০২১, ০৫:০১ অপরাহ্ন

রাতের আঁধারে সড়ক নির্মাণ, পিচ ঢালাইয়ের পর কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন!

রাতের আঁধারে সড়ক নির্মাণ, পিচ ঢালাইয়ের পর কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন!

মো. মোজাহিদ, স্টাফ রিপোর্টার
গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রী-পাঁচুয়া সড়কে পিচ ঢালাইয়ের পরই কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এদিকে স্থানীয়দের প্রতিবাদের মুখে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওই সড়কের বিভিন্ন অংশ তুলে তা মেরামত করছেন। এছাড়াও সড়কটির বিভিন্ন স্থানে নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার করায় সামান্য বৃষ্টিতে তা উঠে পড়ার উপক্রম হয়েছে। এলাকাবাসীর অভিযোগ, এভাবে সড়কের উন্নয়ন হলে তা সরকারি অর্থের অপচয় ছাড়া আর কিছুই নয়।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অফিসের দেয়া তথ্য মতে, গাজীপুরের শ্রীপুরের বরামা ও কাপাসিয়া  উপজেলার সিংহশ্রীর সাথে সংযুক্ত করেছে এডভোকেট রহমত আলী
সেতু। ওই সেতুর সাথে সংযুক্ত কাপাসিয়া উপজেলার সিংহশ্রী-পাঁচুয়া সড়কের দৈর্ঘ্য ১২কিলোমিটার। এই সড়কের মাধ্যমে  কিশোরগঞ্জ ও ময়মনসিংহ সহ বিভিন্ন
এলাকার মানুষ যাতায়াত করে থাকেন। সড়কটির গুরুত্ব অনুধাবনে সরকার তা উন্নয়নে দরপত্র আহবান করেন। ১২কিলোমিটার এই সড়কে বরাদ্ধ দেয়া হয় ২২কোটি
টাকা। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের তত্ববধানে এ কাজের কার্যাদেশ পায় মেসার্স মশিউর রহমান কাঞ্চন নামের একটি প্রতিষ্ঠান।বর্তমানে সিংহশ্রী বটতলা থেকে এ সড়কের ৩কিলোমিটার পিচ ঢালাইয়ের পরই কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।
স্থানীয়দের অভিযোগ শুরু থেকেই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার করেছে। সম্প্রতি তারা সড়কের পিচ ঢালাইয়ের কাজ শুরু করেন। গেল সপ্তায় তাদের মেশিন নষ্টের অজুহাত দিয়ে বৃষ্টির মধ্যে গভীর রাতে কয়েক
কলোমিটার এলাকায় হাতের মাধ্যমে পিচ ঢালাইয়ের কাজ সম্পন্ন করেন। অধিকাংশ স্থানে সঠিকভাবে বিটুমিন না দেয়ায় পরে দিনের বেলায় সামান্য  বৃষ্টিতে বিভিন্ন স্থানে তা উঠে পড়ার উপক্রম হয়। এ ঘটনায় স্থানীয় এলাকাবাসীর প্রতিবাদের মুখে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সড়কের বিভিন্ন স্থানে উঠিয়ে তা মেরামত করছে। নতুন কাজ মেরামতের পর তা কতদিন টিকবে তা নিয়ে হতাশা তৈরী
হয়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে। সিংহশ্রী ভিটিপাড়া এলাকার মোসলেহ উদ্দিনের ভাষ্য, এই সড়কটি খুবই গুরুত্বপূর্ন। এলাকার অর্থনৈতিক গুরুত্ব সহ গাজীপুর লাগোয়া বিভিন্ন জেলার মানুষ রাজধানী ঢাকার সাথে দ্রুত যোগাযোগের মাধ্যম এ সড়কটি। কিন্ত বহু বছর ধরেই এ সড়কটির দুরাবস্থার কারনে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছিল স্থানীয়দের। সড়কের উন্নয়ন কাজ শুরু হওয়ায় আমরা আশার আলো দেখছিলাম। কিন্তু কাজের মান দেখে ফের হতাশা তৈরী হয়েছে। এভাবে উন্নয়ন কাজ করা সরকারি
অর্থের অপচয় ছাড়া আর কিছুই না।
সিংহশ্রী গ্রামের মাদ্রাসা শিক্ষক আবুল হাসেম জানান, ঠিকাদার তো ফাঁকি দিতে চাইবেই। তবে যাদের নজরদারী করার কথা ছিল তারা কোথায় ? ঠিকাদারদের
নিম্নমানের কাজের সুযোগ করে দিয়ে সরকারী কর্মকর্তারা দুর্নীতির আশ্রয় নিয়েছেন। এভাবে কাজ করলে সড়কটি অল্পদিনেই বেহাল হয়ে পড়বে। তাই স্থানীয়দের দাবী অন্তত সরকারী প্রতিটি অর্থের যেন এখানে যেন শতভাগ ব্যবহার নিশ্চিত করা হয় এর জন্য নজরদারী বাড়াতে হবে। স্থানীয় শহিদুল ইসলামের ভাষ্য, সড়কটিতে রাতের বেলায় এভাবে পিচ ঢালাই করা হয়েছে যে, কোন স্থানে ১ইঞ্চি ও কোন স্থানে এর কমও রয়েছে। এছাড়াও বেশীরভাগ স্থানেই বিটুমিন নেই।
এ বিষয়ে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের মালিক মশিউর রহমান কাঞন বলেন, রাতের বেলায় তার পিচ ঢালাইয়ের মেশিনটি নষ্ট হয়ে গিয়েছিল, সাথে বৃষ্টিও হয়েছিল। তাই হাতের মাধ্যমে পিচ ঢালাই করায় কিছুু সমস্যা তৈরী হয়। তবে যেসব স্থানে এমন সমস্যা হয়েছে তারা তা তুলে ফেলেছেন সেখানে পুনরায় পিচ ঢালাই দেয়া হবে। এ বিষয়ে কাপাসিয়া উপজেলার সহকারী প্রকৌশলী আব্দুর রহমান মইন বলেন, রাতের বেলায় মেশিন নষ্ট হয়ে যাওয়ায় কিছু কিছু স্থানে এমন সমস্যা তৈরী হয়েছিল , দিনের বেলায় তা ধরা পড়ায় সেসব  স্থান উঠিয়ে মেরামত হচ্ছে। তবে কাজের মান ভালো হয়েছে। কাজ চলমান তা শেষে দৃশ্যমান হবে। তিনি আরও বলেন, ঠিকাদারদের সাথে বসেই কাজের মালামাল সরবরাহের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল এনডিএ নামের একটি প্রতিষ্ঠানকে। তারা এখন নানা জটিলতা তৈরী করছে।
স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর গাজীপুর জেলার  নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল বারেক বলেন, রাতের বেলায় পিচ ঢালাই দেয়ায় কিছু কিছু স্থানে সমস্যা তৈরী হয়। পরে আমরা সেখানে গিয়ে বিভিন্ন স্থান শনাক্ত করে তা তুলে পুনরায় সেখানে কাজ করার কথা বলেছি।

খবরটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved 2018 khoborbangladesh.com
Desing & Developed BY ThemesBazar.Com