ঢাকা ১১:১১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরগুনায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতাকে জনৈক নারীর জুতাপেটার ভিডিও টক অফ দা টাউনে পরিণত!

বরিশাল বিভাগীয় ব্যুরো চীফ
বরগুনায় সদর উপজেলার এক আওয়ামী লীগ নেতাকে নারীর জুতাপেটার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও মেসেঞ্জারে ছড়িয়ে পড়ায় টক অফ দা টাউনে পরিণত হয়েছে। ভিডিওতে এক নারীর সাথে একটি কক্ষে আপত্তিকর অবস্থায় ওই আওয়ামী লীগ নেতাকে দেখা যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জার ও ফেসবুকে ওই ভিডিও প্রকাশ পেলে বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। ভিডিওতে বরগুনা সদর উপজেলার নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম জাকিরকে একটি কক্ষে একজন নারীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা যায়। ওই কক্ষে উপস্থিত আকাশী টি শার্ট ও সাদা জামা পরিহিত দুজন যুবককে আওয়ামী লীগ নেতা শাহ আলম জাকির ও নারীর সাথে কথোপকথনরত দেখা যায়। এসময় ওই নারীকে বলতে শোনা যায়, আমারে বিয়ার কথা কইয়া এইহানে ডাইকা আইনা আকাম করছে আমি বিয়া করতে চাই। কথোপকথন চলার মধ্যেই ওই নারী আকস্মিকভাবে জুতাপেটা শুরু করেন শাহ আলম জাকিরকে। শাহ আলম বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমার ফোনে রেকর্ড আছে আপনারা শোনতে পারেন। পরে টাকা পয়সা নিয়ে বিষয়টি গোপন রাখার প্রস্তাব দেন শাহ আলম জাকির। তিনি ৬০ হাজার টাকা দিতে সম্মত হন। কিন্ত ওই নারী প্রস্তাবে রাজী না হয়ে সেখানে উপস্থিত ব্যক্তিদেরকে বিয়ে পড়িয়ে দিতে বলেন। ভিডিওর সূত্র ধরে খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, গত শনিবার রাত আটটার পর বরগুনা পৌর শহরের ডিকেপি সড়কের একটি বাসায় এ ঘটনা ঘটে। যোগাযোগ করা হলে নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম জাকির ঘটনার বিষয় স্বীকার করে বলেন, ‘আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ পরিকল্পিতভাবে আমাকে ওই বাসায় ডেকে নিয়ে নারীকে দিয়ে ফাঁদে ফেলে ভিডিও ধারণ করে ব্লাকমেইল করে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিয়েছে।’ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ ওয়ালিউল্লাহ অলি বলেন, ‘আমি এখনো এরকম কোনো ভিডিও দেখিনি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব, যদি নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম জাকির কোনো অনৈতিক কাজে জড়িয়ে থাকেন সে দায় সংগঠন নেবেনা।’ বরগুনা সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহম্মেদ বলেন, এ বিষয়ে এখনো পর্যন্ত কেউ থানায় কোনো অভিযোগ করেনি। কেউ যদি অভিযোগ করে আমরা তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।

ট্যাগস

বরগুনায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ নেতাকে জনৈক নারীর জুতাপেটার ভিডিও টক অফ দা টাউনে পরিণত!

আপডেট টাইম : ০৬:২০:০৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৩ এপ্রিল ২০২২

বরিশাল বিভাগীয় ব্যুরো চীফ
বরগুনায় সদর উপজেলার এক আওয়ামী লীগ নেতাকে নারীর জুতাপেটার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও মেসেঞ্জারে ছড়িয়ে পড়ায় টক অফ দা টাউনে পরিণত হয়েছে। ভিডিওতে এক নারীর সাথে একটি কক্ষে আপত্তিকর অবস্থায় ওই আওয়ামী লীগ নেতাকে দেখা যায়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের ম্যাসেঞ্জার ও ফেসবুকে ওই ভিডিও প্রকাশ পেলে বিষয়টি নিয়ে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে। ভিডিওতে বরগুনা সদর উপজেলার নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম জাকিরকে একটি কক্ষে একজন নারীর সাথে আপত্তিকর অবস্থায় দেখা যায়। ওই কক্ষে উপস্থিত আকাশী টি শার্ট ও সাদা জামা পরিহিত দুজন যুবককে আওয়ামী লীগ নেতা শাহ আলম জাকির ও নারীর সাথে কথোপকথনরত দেখা যায়। এসময় ওই নারীকে বলতে শোনা যায়, আমারে বিয়ার কথা কইয়া এইহানে ডাইকা আইনা আকাম করছে আমি বিয়া করতে চাই। কথোপকথন চলার মধ্যেই ওই নারী আকস্মিকভাবে জুতাপেটা শুরু করেন শাহ আলম জাকিরকে। শাহ আলম বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, আমার ফোনে রেকর্ড আছে আপনারা শোনতে পারেন। পরে টাকা পয়সা নিয়ে বিষয়টি গোপন রাখার প্রস্তাব দেন শাহ আলম জাকির। তিনি ৬০ হাজার টাকা দিতে সম্মত হন। কিন্ত ওই নারী প্রস্তাবে রাজী না হয়ে সেখানে উপস্থিত ব্যক্তিদেরকে বিয়ে পড়িয়ে দিতে বলেন। ভিডিওর সূত্র ধরে খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, গত শনিবার রাত আটটার পর বরগুনা পৌর শহরের ডিকেপি সড়কের একটি বাসায় এ ঘটনা ঘটে। যোগাযোগ করা হলে নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম জাকির ঘটনার বিষয় স্বীকার করে বলেন, ‘আমার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ পরিকল্পিতভাবে আমাকে ওই বাসায় ডেকে নিয়ে নারীকে দিয়ে ফাঁদে ফেলে ভিডিও ধারণ করে ব্লাকমেইল করে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিয়েছে।’ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোহাম্মদ ওয়ালিউল্লাহ অলি বলেন, ‘আমি এখনো এরকম কোনো ভিডিও দেখিনি। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব, যদি নলটোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহ আলম জাকির কোনো অনৈতিক কাজে জড়িয়ে থাকেন সে দায় সংগঠন নেবেনা।’ বরগুনা সদর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আলী আহম্মেদ বলেন, এ বিষয়ে এখনো পর্যন্ত কেউ থানায় কোনো অভিযোগ করেনি। কেউ যদি অভিযোগ করে আমরা তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করব।