ঢাকা ০৯:৪১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ০৯ এপ্রিল ২০২৪, ২৬ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিএনপি নেতাকে ধরতে গিয়ে পুলিশ অবরুদ্ধ

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

একাধিক মামলার আসামি পৌর বিএনপির সহসাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদকে গ্রেপ্তারে অভিযানে গেলে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পূর্বখণ্ড গ্রামের গারোপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপারেশন) আনিছুর আশেকিন জানান, আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি রয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে কালাম বাড়িতে অবস্থান করছে এমন খবরের ভিত্তিতে উপপরিদর্শক মো. মামুন ও আ. রাজ্জাক অভিযান চালান। এ সময় কালামের লোকজন পুলিশের কাজে বাধা দেয়। তারা পুলিশ সদস্যদের লাঞ্ছিত করে। এক পর্যায়ে নিরাপত্তার জন্য তারা একটি সেলুনে আশ্রয় নেয়। এ সময় দুই পুলিশ সদস্যকে এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে দুই এসআইকে উদ্ধার ও কালামকে গ্রেপ্তার করে।

স্থানীয়রা দাবি করেন, সাদা পোশাকে দুইজন লোক কিছু না বলে কালামকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যেতে চান। সাদা পোশাকে থাকায় তাদের চেনা যায়নি। ভুয়া পুলিশ মনে করে তাদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, কালাম বাড়িতে বসে মাদক সেবক করছিল। পুলিশের কাজে বাধা ও মাদক রাখায় তার বিরুদ্ধে দুটি মামলা হবে।

ট্যাগস

বিএনপি নেতাকে ধরতে গিয়ে পুলিশ অবরুদ্ধ

আপডেট টাইম : ০৬:২১:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২

শ্রীপুর (গাজীপুর) প্রতিনিধি

একাধিক মামলার আসামি পৌর বিএনপির সহসাধারণ সম্পাদক আবুল কালাম আজাদকে গ্রেপ্তারে অভিযানে গেলে দুই পুলিশ কর্মকর্তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে স্থানীয়রা।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে গাজীপুরের শ্রীপুর পৌরসভার কেওয়া পূর্বখণ্ড গ্রামের গারোপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে নিয়ে আসে।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (অপারেশন) আনিছুর আশেকিন জানান, আবুল কালাম আজাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি রয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে কালাম বাড়িতে অবস্থান করছে এমন খবরের ভিত্তিতে উপপরিদর্শক মো. মামুন ও আ. রাজ্জাক অভিযান চালান। এ সময় কালামের লোকজন পুলিশের কাজে বাধা দেয়। তারা পুলিশ সদস্যদের লাঞ্ছিত করে। এক পর্যায়ে নিরাপত্তার জন্য তারা একটি সেলুনে আশ্রয় নেয়। এ সময় দুই পুলিশ সদস্যকে এক ঘণ্টা অবরুদ্ধ করে রাখা হয়। খবর পেয়ে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে দুই এসআইকে উদ্ধার ও কালামকে গ্রেপ্তার করে।

স্থানীয়রা দাবি করেন, সাদা পোশাকে দুইজন লোক কিছু না বলে কালামকে বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যেতে চান। সাদা পোশাকে থাকায় তাদের চেনা যায়নি। ভুয়া পুলিশ মনে করে তাদের অবরুদ্ধ করে রাখা হয়।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান বলেন, কালাম বাড়িতে বসে মাদক সেবক করছিল। পুলিশের কাজে বাধা ও মাদক রাখায় তার বিরুদ্ধে দুটি মামলা হবে।