ঢাকা ০৪:৪১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
আদমদীঘিতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ: গ্রেফতার-১ মহম্মদপুরে হত্যার মামলার আসামি জামিনে এসে বাদিকে মামলা তুলে নেয়ার হুমকি, পরে মারধর আ.লীগ নেতার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় আইসক্রিম ফাক্টরি মালিক কালিহাতীতে লিঙ্গ কাটার অভিযোগ স্ত্রী’র বিরুদ্ধে ফিটনেস বিহীন নৌযানে সয়লাব সদরঘাট,নেই পর্যাপ্ত দক্ষ নাবিক! ৫০ কোটি টাকার মামলা থেকে বাঁচতে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার পাল্টা মামলা! ফরিদপুরে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় তোলপাড় রশুনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের নব সভাপতি হলেন আবু সাঈদ মির্জাগঞ্জে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) উদ্যোগে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ মাগুরার হৃদয়পুরে ফসলি জমির টপসয়েল মাটিকাটার অভিযোগ, ইউএনওর হস্তক্ষেপে কাজ বন্ধ

বাউফলে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমানের অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

এম.জাফরান হারুন
পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে দুস্থদের মাঝে হাঁস, মুরগি ও ভেড়া বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আল-আমিনের কাছে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করেছেন কেশবপুর ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকু। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় করোনাকালে কেশবপুর ইউনিয়নের দুস্থ ও অসহায় মানুষদের মাঝে হাঁস, মুরগি ও ভেড়া বরাদ্দ দেয়। এতে সিদ্ধান্ত হয় ইউনিয়ন পরিষদ দুস্থদের তালিকা করবে। কিন্তু উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার তার প্রতিনিধি মাসুমের মাধ্যমে মনগড়াভাবে ওই তালিকা করেন। এছাড়াও যে সব অসহায় মানুষের নাম ও জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি নেয়া হয়েছে তারাও সাহায্য পায়নি। সাহায্য দেয়া হয়েছে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার আত্মীয় স্বজন ও পছন্দের লোকদের। অভিযোগে আরও বলা হয়, চুড়ান্ত তালিকায় ইউপি চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর নেয়ার কথা থাকলেও চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর ছাড়াই তালিকা চুড়ান্ত করা হয়েছে। এবিষয়ে কেশবপুর ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকু বলেন, মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুববের বাড়ি কেশবপুরে। তিনি ভিন্ন মতার্দশের লোক। আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এ ষড়যন্ত্র করেছেন। এবিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, ওই ফাংশন আমার না। কেন অভিযোগ করলো তাও জানি না। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আল-আমিন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

আদমদীঘিতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ: গ্রেফতার-১

বাউফলে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমানের অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ

আপডেট টাইম : ০৪:২৪:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ অগাস্ট ২০২২

এম.জাফরান হারুন
পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমানের বিরুদ্ধে দুস্থদের মাঝে হাঁস, মুরগি ও ভেড়া বিতরণে ব্যাপক অনিয়ম দূর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। গত রবিবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আল-আমিনের কাছে এ ব্যাপারে লিখিত অভিযোগ করেছেন কেশবপুর ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকু। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় করোনাকালে কেশবপুর ইউনিয়নের দুস্থ ও অসহায় মানুষদের মাঝে হাঁস, মুরগি ও ভেড়া বরাদ্দ দেয়। এতে সিদ্ধান্ত হয় ইউনিয়ন পরিষদ দুস্থদের তালিকা করবে। কিন্তু উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার তার প্রতিনিধি মাসুমের মাধ্যমে মনগড়াভাবে ওই তালিকা করেন। এছাড়াও যে সব অসহায় মানুষের নাম ও জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি নেয়া হয়েছে তারাও সাহায্য পায়নি। সাহায্য দেয়া হয়েছে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তার আত্মীয় স্বজন ও পছন্দের লোকদের। অভিযোগে আরও বলা হয়, চুড়ান্ত তালিকায় ইউপি চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর নেয়ার কথা থাকলেও চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর ছাড়াই তালিকা চুড়ান্ত করা হয়েছে। এবিষয়ে কেশবপুর ইউপি চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকু বলেন, মৎস্য কর্মকর্তা মাহবুববের বাড়ি কেশবপুরে। তিনি ভিন্ন মতার্দশের লোক। আমি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছে। আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা এ ষড়যন্ত্র করেছেন। এবিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, ওই ফাংশন আমার না। কেন অভিযোগ করলো তাও জানি না। এবিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. আল-আমিন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।