ঢাকা ০৩:০২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
ভূল অসত্য সংবাদ পরিবেশন করায় ব্যবসায়ীর  সংবাদ সম্মেলন কেটালী পাড়ায় দিনে দুপুরে সরকারী কোয়াটারে চুরি জনবান্ধব ভূমি সংস্কারে অগ্রাধিকার দিচ্ছে সরকার: ভূমিমন্ত্রী ভূমি অফিসে যেন কোনো দালাল না থাকে: মন্ত্রী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শাহীন আলম বিলাশবহুল ৮তলা বাড়ীর মালিক! মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘অপারেশন জ্যাকপট’ নিয়ে এতো অনাসৃষ্টি কেন? চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তা ডা: শোভন দত্তের বিরুদ্ধে সরকারী টাকা আত্মসাত,বিদেশে টাকা পাচার,অবৈধ সম্পদ অর্জন ও নারী কেলেংকারীর অভিযোগ! দদুকের তদন্ত থাকা কর্মকর্তাকে চুক্তিভিত্তিক ডিজি নিয়োগের তোড়জোড়! গাজীপুর সিটি করপোরেশনের গাড়িচাপায় শ্রমিক নিহত, মহাসড়ক অবরোধ মির্জাগঞ্জে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও  শহীদ  দিবসে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির শ্রদ্ধা নিবেদন 

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কোটি টাকার স্বর্ণসহ আটক-৩

বিমান বন্দর প্রতিনিধি
যাত্রী আলী আকবর,রফিকুল ইসলাম ও মো রুবেল দুবাই হতে ঢাকাগামী তারিখঃ ২২ অক্টোবর ২০২২ইং তারিখে ৩৪২ নং ফ্লাইটে আনুমানিক সকাল ৭:১০ মিনিটে, সিট নং ০৫ডি, ১৪সি ও ০৯ডি এর মাধ্যমে হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করেন। যাত্রীরা ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করে রেড চ্যানেল দিয়ে প্রবেশ করে প্রত্যেকে ২টি করে স্বর্ণবার মোট ৪৬৪ গ্রাম ঘোষণা প্রদানপূর্বক শুল্ক করাদি দিয়ে গ্রীণ চ্যানেল অতিক্রমকালে তাদের কাছে ঘোষণা বহিভূত কোন পণ্য কিংবা স্বর্ণবার আছে কিনা গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধির উপস্থিতিতে কাস্টম হাউস ঢাকা এর প্রিভেনটিভ কর্মকর্তা জানতে চাইলে যাত্রীরা তাদের কাছে থাকা ২টি করে স্বর্ণবার এবং ৯৮ গ্রাম করে স্বর্ণালংকার ছাড়া আর কোন শুল্কযুক্ত পণ্য নেই মর্মে জানান। পরবর্তীতে গোয়েন্দাদের সন্ধেহ হওয়ার পর যাত্রীদেরকে আর্চওয়ে করা হলে আর্চওয়েতে ধাতব পদার্থ থাকার সংকেত পাওয়া যায়। এরপর শরীর তল্লাশী করা হলে যাত্রীদের শর্ট প্যান্টে অভিনব কায়দায় আটকানো পেস্ট আকারের স্বর্ণ পাওয়া যায়।
পরবর্তীতে বিমানবন্দরে কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিগণের উপস্থিতিতে যাত্রীকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমস আগমনী হলের ব্যাগেজ কাউন্টারে যাত্রীদের পরিহত শর্টপ্যান্ট খুলে স্বর্ণকারের সহায়তায় তা আগুনে পুড়িয়ে এবং এসিডে ধৌত করে যাত্রী আলী আকবর এর কাছ থেকে ৪৬৪ গ্রাম পেস্ট আকারের স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অভিনব কায়দায় স্বর্ণ চোরাচালানের অপচেষ্টা করায় তার সাথে আনা সমুদয় স্বর্ণ সর্বমোট ৭৯৪ গ্রাম(দুটি সোনার বার ২৩২ গ্রাম,স্বর্ণালংকার ৯৮ গ্রাম ও পেস্ট আকারের ভেজা সোনা ৪৬৪ গ্রাম) আটক করা হয়। তার সাথে থাকা আটক স্বর্ণের বাজারমূল্য প্রায় ৪৫ লাখ টাকা।
অপরদিকে যাত্রী রফিকুল ইসলাম ও মো রুবেল ইসলামকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমস আগমনী হলের ব্যাগেজ কাউন্টারে যাত্রীদের পরিহত শর্টপ্যান্ট খুলে স্বর্ণকারের সহায়তায় তা আগুনে পুড়িয়ে এবং এসিডে ধৌত করে তাদের কাছ থেকে পেস্ট আকারের ভেজা স্বর্ণ (৪৬৪ ও ৪৬৪ গ্রাম) সর্বমোট ৯২৮ গ্রাম উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অভিনব কায়দায় স্বর্ণ চোরাচালানের অপচেষ্টা করায় তাদের সাথে আনা সমুদয় স্বর্ণ সর্বমোট ১৫৮৮গ্রাম (৪টি সোনার বার ৪৬৪ গ্রাম,স্বর্ণালংকার ১৯৬ গ্রাম ও পেস্ট আকারের ভেজা সোনা ৯২৮ গ্রাম) কাস্টম হাউস ঢাকা এর প্রিভেন্টিভ টীম আটক করে। তাদের সাথে থাকা আটক স্বর্ণের বাজারমূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা।
উল্লেখ্য যে, আটককৃত স্বর্ণসমূহ সৃজা জুয়েলার্স, এল কে প্লাজা, ৯০ দক্ষিণখান বাজার, ঢাকা-১২৩০ এর প্রতিনিধির মাধ্যমে কষ্টি পাথরের সাহায্যে প্রাথমিক পরীক্ষা করা হয়। প্রাথমিক পরীক্ষায় আটককৃত স্বর্ণসদৃশ পেস্টকে স্বর্ণ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি প্রত্যয়ন প্রদান করেছেন, যা পরবর্তী আইনানুগ নিষ্পত্তির জন্য সাময়িক ভাবে আটক করা হয়। এ বিষয়ে কাস্টমস আইনে বিমানবন্দর থানায় ফৌজদারী মামলা দায়ের করেন কলে জানান।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

ভূল অসত্য সংবাদ পরিবেশন করায় ব্যবসায়ীর  সংবাদ সম্মেলন

শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কোটি টাকার স্বর্ণসহ আটক-৩

আপডেট টাইম : ০৯:৪২:৫৪ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৪ অক্টোবর ২০২২

বিমান বন্দর প্রতিনিধি
যাত্রী আলী আকবর,রফিকুল ইসলাম ও মো রুবেল দুবাই হতে ঢাকাগামী তারিখঃ ২২ অক্টোবর ২০২২ইং তারিখে ৩৪২ নং ফ্লাইটে আনুমানিক সকাল ৭:১০ মিনিটে, সিট নং ০৫ডি, ১৪সি ও ০৯ডি এর মাধ্যমে হযরত শাহ্জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করেন। যাত্রীরা ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করে রেড চ্যানেল দিয়ে প্রবেশ করে প্রত্যেকে ২টি করে স্বর্ণবার মোট ৪৬৪ গ্রাম ঘোষণা প্রদানপূর্বক শুল্ক করাদি দিয়ে গ্রীণ চ্যানেল অতিক্রমকালে তাদের কাছে ঘোষণা বহিভূত কোন পণ্য কিংবা স্বর্ণবার আছে কিনা গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিনিধির উপস্থিতিতে কাস্টম হাউস ঢাকা এর প্রিভেনটিভ কর্মকর্তা জানতে চাইলে যাত্রীরা তাদের কাছে থাকা ২টি করে স্বর্ণবার এবং ৯৮ গ্রাম করে স্বর্ণালংকার ছাড়া আর কোন শুল্কযুক্ত পণ্য নেই মর্মে জানান। পরবর্তীতে গোয়েন্দাদের সন্ধেহ হওয়ার পর যাত্রীদেরকে আর্চওয়ে করা হলে আর্চওয়েতে ধাতব পদার্থ থাকার সংকেত পাওয়া যায়। এরপর শরীর তল্লাশী করা হলে যাত্রীদের শর্ট প্যান্টে অভিনব কায়দায় আটকানো পেস্ট আকারের স্বর্ণ পাওয়া যায়।
পরবর্তীতে বিমানবন্দরে কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার প্রতিনিধিগণের উপস্থিতিতে যাত্রীকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমস আগমনী হলের ব্যাগেজ কাউন্টারে যাত্রীদের পরিহত শর্টপ্যান্ট খুলে স্বর্ণকারের সহায়তায় তা আগুনে পুড়িয়ে এবং এসিডে ধৌত করে যাত্রী আলী আকবর এর কাছ থেকে ৪৬৪ গ্রাম পেস্ট আকারের স্বর্ণ উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অভিনব কায়দায় স্বর্ণ চোরাচালানের অপচেষ্টা করায় তার সাথে আনা সমুদয় স্বর্ণ সর্বমোট ৭৯৪ গ্রাম(দুটি সোনার বার ২৩২ গ্রাম,স্বর্ণালংকার ৯৮ গ্রাম ও পেস্ট আকারের ভেজা সোনা ৪৬৪ গ্রাম) আটক করা হয়। তার সাথে থাকা আটক স্বর্ণের বাজারমূল্য প্রায় ৪৫ লাখ টাকা।
অপরদিকে যাত্রী রফিকুল ইসলাম ও মো রুবেল ইসলামকে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাস্টমস আগমনী হলের ব্যাগেজ কাউন্টারে যাত্রীদের পরিহত শর্টপ্যান্ট খুলে স্বর্ণকারের সহায়তায় তা আগুনে পুড়িয়ে এবং এসিডে ধৌত করে তাদের কাছ থেকে পেস্ট আকারের ভেজা স্বর্ণ (৪৬৪ ও ৪৬৪ গ্রাম) সর্বমোট ৯২৮ গ্রাম উদ্ধার করা হয়। এছাড়া অভিনব কায়দায় স্বর্ণ চোরাচালানের অপচেষ্টা করায় তাদের সাথে আনা সমুদয় স্বর্ণ সর্বমোট ১৫৮৮গ্রাম (৪টি সোনার বার ৪৬৪ গ্রাম,স্বর্ণালংকার ১৯৬ গ্রাম ও পেস্ট আকারের ভেজা সোনা ৯২৮ গ্রাম) কাস্টম হাউস ঢাকা এর প্রিভেন্টিভ টীম আটক করে। তাদের সাথে থাকা আটক স্বর্ণের বাজারমূল্য প্রায় ১ কোটি টাকা।
উল্লেখ্য যে, আটককৃত স্বর্ণসমূহ সৃজা জুয়েলার্স, এল কে প্লাজা, ৯০ দক্ষিণখান বাজার, ঢাকা-১২৩০ এর প্রতিনিধির মাধ্যমে কষ্টি পাথরের সাহায্যে প্রাথমিক পরীক্ষা করা হয়। প্রাথমিক পরীক্ষায় আটককৃত স্বর্ণসদৃশ পেস্টকে স্বর্ণ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি প্রত্যয়ন প্রদান করেছেন, যা পরবর্তী আইনানুগ নিষ্পত্তির জন্য সাময়িক ভাবে আটক করা হয়। এ বিষয়ে কাস্টমস আইনে বিমানবন্দর থানায় ফৌজদারী মামলা দায়ের করেন কলে জানান।