ঢাকা ০৬:২৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
স্পীকারের সাথে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ সিরাজদিখানে পুলিশের হামলার আহত সাংবাদিক সালমানকে দেখতে গেলেন ওসি সিরাজদিখানে পুলিশের হামলায় সাংবাদিক, অন্তঃসত্ত্বা নারী ও শিশুসহ ৩০ জন আহত: আটক-৯ আদমদীঘিতে জামাই’র বেড়ির আঘাতে শাশুড়ির মৃত্যু  নওগাঁয় বিস্কুট খেয়ে একই পরিবারের দুই কন্যা শিশুর মৃত্যু; গুরুতর অসুস্থ্য-১ ডিপিডিসির ব্যবস্থাপক হুজ্জত ও তাঁর স্ত্রীর বিরুদ্ধে দুদকের মামলা গাজীপুর আওয়ামী লীগে জায়গা পেলেন না জাহাঙ্গীর জসিমের ‘কেলেঙ্কারির’ বিরুদ্ধে ব্যবস্থার তথ্য জানতে চায় আইডিআরএ মহম্মদপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে হামলা -ভাংচুর, কলেজ ছাত্রী সহ আহত ৬ মাগুরার শ্রীপুরে ১০ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

ঐন্দ্রিলার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি ?

অনলাইন ডেস্ক:

মন থেকে সবাই ঐন্দ্রিলার জন্য প্রার্থনা করুন। সোমবার ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে ফেসবুকে সব্যসাচীর পোস্টে দুশ্চিন্তা যেন আরও বেড়ে গেল। যে সব্যসাচী বার বার ঐন্দ্রিলার লড়াইয়ের কথা লিখলেন, ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ার কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করতেন। সেই সব্যসাচীই এবার প্রার্থনার কথা লিখছেন। তাহলে কি ঐন্দ্রিলার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি ঘটল?

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সংক্রমণ কমছে না ঐন্দ্রিলার। সেটা নিয়েই দুশ্চিন্তা। বার বার জ্বর আসছে। এমনকী, নতুন অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্সও শুরু হয়েছে ঐন্দ্রিলার। ঐন্দ্রিলাকে রাখা হয়েছে কড়া পর্যবেক্ষণে। তবে এখনও ভেন্টিলেশনেই রয়েছেন অভিনেত্রী।

প্রসঙ্গত, ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে প্রায় ১৩ দিন ধরে হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি ঐন্দ্রিলা। তার ছায়াসঙ্গী হয়ে সেখানে রয়েছেন সব্যসাচী চৌধুরী। গত সোমবার ফেসবুক পোস্টে সব্যসাচী জানিয়েছিলেন, ভেন্টিলেশন থেকে বেরিয়ে আসতে পেরেছেন ঐন্দ্রিলা। আগের থেকে তাঁর শ্বাসক্রিয়া অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে, রক্তচাপও মোটামুটি স্বাভাবিক। জ্বরও কমেছে। সব্যসাচীর এই পোস্টে কিছুটা স্বস্তির খবর পেয়েছিল ঐন্দ্রিলার অনুরাগীরা। তবে গত বুধবার ফের ঐন্দ্রিলার শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ে।

এর মধ্যেই আবার ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়িয়েছিল। তাতে ক্ষিপ্ত হয়ে ফেসবুক পোস্টে সব্যসাচী লিখেছিলেন, “আমার আজকাল কিছুই লিখতে ইচ্ছা করে না, কিন্তু আজ কিছু মানুষের বর্বরতার নমুনা দেখে লিখতে বাধ্য হলাম। ইউটিউবের কল্যাণে কয়েকটা ভুয়ো ভিডিও আর ফেক থাম্বনেল বানিয়ে পয়সা রোজগার করা অত্যন্ত ঘৃণ্য মানসিকতার কাজ বলে আমি মনে করি, সেটা যে ওর বাড়ির লোকের মনে কেমন প্রভাব ফেলে তা হয়তো আপনারা বুঝবেন না। আমার চোখে ওর স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটেনি, অবনতি ঘটেছে মানবিকতার।” এরপরই আবার ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ ধারাবাহিকের অভিনেতা লেখেন, “‘ভাল আছে’ বলতে আমার ভয় লাগে, কিন্তু ঐন্দ্রিলা আছে। প্রচণ্ডভাবে আছে। আমার সামনে শুয়ে থেকেও হয়তো কয়েক সহস্র মাইল দূরে আছে কিন্তু ঠিক ফিরে আসবে। ওর একা থাকতে বিরক্ত লাগে।”

জনপ্রিয় সংবাদ

স্পীকারের সাথে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতের বিদায়ী সাক্ষাৎ

ঐন্দ্রিলার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি ?

আপডেট টাইম : ০৭:০৬:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর ২০২২

অনলাইন ডেস্ক:

মন থেকে সবাই ঐন্দ্রিলার জন্য প্রার্থনা করুন। সোমবার ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে ফেসবুকে সব্যসাচীর পোস্টে দুশ্চিন্তা যেন আরও বেড়ে গেল। যে সব্যসাচী বার বার ঐন্দ্রিলার লড়াইয়ের কথা লিখলেন, ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ার কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করতেন। সেই সব্যসাচীই এবার প্রার্থনার কথা লিখছেন। তাহলে কি ঐন্দ্রিলার শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি ঘটল?

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, সংক্রমণ কমছে না ঐন্দ্রিলার। সেটা নিয়েই দুশ্চিন্তা। বার বার জ্বর আসছে। এমনকী, নতুন অ্যান্টিবায়োটিকের কোর্সও শুরু হয়েছে ঐন্দ্রিলার। ঐন্দ্রিলাকে রাখা হয়েছে কড়া পর্যবেক্ষণে। তবে এখনও ভেন্টিলেশনেই রয়েছেন অভিনেত্রী।

প্রসঙ্গত, ব্রেন স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে প্রায় ১৩ দিন ধরে হাওড়ার বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি ঐন্দ্রিলা। তার ছায়াসঙ্গী হয়ে সেখানে রয়েছেন সব্যসাচী চৌধুরী। গত সোমবার ফেসবুক পোস্টে সব্যসাচী জানিয়েছিলেন, ভেন্টিলেশন থেকে বেরিয়ে আসতে পেরেছেন ঐন্দ্রিলা। আগের থেকে তাঁর শ্বাসক্রিয়া অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে, রক্তচাপও মোটামুটি স্বাভাবিক। জ্বরও কমেছে। সব্যসাচীর এই পোস্টে কিছুটা স্বস্তির খবর পেয়েছিল ঐন্দ্রিলার অনুরাগীরা। তবে গত বুধবার ফের ঐন্দ্রিলার শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়ে।

এর মধ্যেই আবার ঐন্দ্রিলাকে নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়িয়েছিল। তাতে ক্ষিপ্ত হয়ে ফেসবুক পোস্টে সব্যসাচী লিখেছিলেন, “আমার আজকাল কিছুই লিখতে ইচ্ছা করে না, কিন্তু আজ কিছু মানুষের বর্বরতার নমুনা দেখে লিখতে বাধ্য হলাম। ইউটিউবের কল্যাণে কয়েকটা ভুয়ো ভিডিও আর ফেক থাম্বনেল বানিয়ে পয়সা রোজগার করা অত্যন্ত ঘৃণ্য মানসিকতার কাজ বলে আমি মনে করি, সেটা যে ওর বাড়ির লোকের মনে কেমন প্রভাব ফেলে তা হয়তো আপনারা বুঝবেন না। আমার চোখে ওর স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটেনি, অবনতি ঘটেছে মানবিকতার।” এরপরই আবার ‘মহাপীঠ তারাপীঠ’ ধারাবাহিকের অভিনেতা লেখেন, “‘ভাল আছে’ বলতে আমার ভয় লাগে, কিন্তু ঐন্দ্রিলা আছে। প্রচণ্ডভাবে আছে। আমার সামনে শুয়ে থেকেও হয়তো কয়েক সহস্র মাইল দূরে আছে কিন্তু ঠিক ফিরে আসবে। ওর একা থাকতে বিরক্ত লাগে।”