ঢাকা ০৫:৫৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে বাড্ডা থানার অপরাধীদের আতঙ্কের নাম ওসি ইয়াসীন গাজী কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা’র নেতৃত্বে সাজ্জাদ-মোশাররফ স্বামীকে বটি দিয়ে কুপিয়ে খুন করে থানায় স্ত্রীর আত্মসমর্পণ কোটালীপাড়ায় তিন দিনব্যাপী কবি সুকান্ত মেলার উদ্বোধন বেইলি রোডে আগুনে নিহত ৪৬ জয়পুরহাটে ৭ মামলার কুখ্যাত সন্ত্রাসী অস্ত্র ও মাদকসহ র‍্যাবের জালে আটক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজিম উদ্দিনের কোলে শিশু মো. লাকিত হোসেন ধর্ষণ মামলার প্রধান একমাত্র পলাতক আসামি অবশেষে আটক মির্জাগঞ্জে দরিদ্র এক নিঃসন্তান বৃদ্ধের খড়ের গাদায় অগ্নিকাণ্ড

বাণিজ্য মেলায় টিকিটের ৫০% ছাড়

খবর বাংলাদেশ :

বছরের প্রথম দিন থেকে পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে শুরু হয়েছে বাণিজ্য মেলা-২০২৩। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৭তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন করেন।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো পূর্বাচলে আয়োজন করা হয়েছে মাসব্যাপী এই মেলা। ঢাকার মূল শহরের বাইরে হওয়ায় গতবারের মতো এবারও যাতায়াতের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) সচিব ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী বলেন, এবারও যাতায়াতে যেন ভোগান্তি না হয় এজন্য কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে সাধারণ দিনে ৫০-৬০টি ও ছুটির দিনে দেড় শতাধিক বিআরটিসি বাস থাকবে। যতক্ষণ যাত্রী থাকবে ততক্ষণ বাস থাকবে। আর এবার বাসের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। যারা নিজস্ব গাড়ি নিয়ে যেতে চান, তাদের জন্য মেলায় প্রায় ১ হাজার গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রাখা আছে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মেলা। সাপ্তাহিক বন্ধের দিনগুলোতে রাত ১০টা পর্যন্ত মেলা চলবে। এবারে মেলার প্রবেশমূল্য প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা ও শিশুদের জন্য ২০ টাকা। মেলার টিকিট অনলাইনে কাটলে এক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ছাড় পাবেন। এবারের মেলায় দেশি-বিদেশি মিলে মেলায় মোট ৩৫১টি স্টল, প্যাভিলিয়ন, মিনি প্যাভিলিয়ন থাকছে। গতবার এই সংখ্যা ছিল ২২৫টি।

মেলায় ১০টি দেশের ১৭ প্রতিষ্ঠানের অংশ নিবে আর সেই দেশ গুলো হলো- মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, ভারত, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল ও ইরান।

দেশীয় পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিপণন, উৎপাদনে সহায়তার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো স্থায়ী ভেন্যু বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টারে বাণিজ্যমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বর্তমানে এটি বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টার নামে পরিচিত। এই এক্সিবিশন সেন্টারটি নির্মাণে মোট ব্যয় হয় ৭৭৩ কোটি টাকা।

যেভাবে বাণিজ্য মেলায় যাবেন:

কুড়িল বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের দুরত্ব প্রায় ১৬ কিলোমিটার। রাস্তা ফাঁকা থাকলে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলায় পৌঁছাতে সময় লাগতে পারে ৫০ মিনিট। আর যানজট থাকলে দেড় ঘণ্টাও লাগতে পারে।

বিআরটিসি বাস ছাড়াও অন্যান্য যাত্রীবাহী বাসে বাণিজ্য মেলায় পৌঁছাতে জনপ্রতি গুনতে হবে ৪০ টাকা। নামতে হবে কাঞ্চনব্রিজে। সেখান থেকে ১০-২০ টাকা রিকশা ভাড়া দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে যেতে পারবেন।

 

ট্যাগস

ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে

বাণিজ্য মেলায় টিকিটের ৫০% ছাড়

আপডেট টাইম : ০৪:৫৭:৪৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ জানুয়ারী ২০২৩

খবর বাংলাদেশ :

বছরের প্রথম দিন থেকে পূর্বাচলে বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারে শুরু হয়েছে বাণিজ্য মেলা-২০২৩। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২৭তম আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার উদ্বোধন করেন।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো পূর্বাচলে আয়োজন করা হয়েছে মাসব্যাপী এই মেলা। ঢাকার মূল শহরের বাইরে হওয়ায় গতবারের মতো এবারও যাতায়াতের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা রেখেছে কর্তৃপক্ষ।

রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর (ইপিবি) সচিব ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী বলেন, এবারও যাতায়াতে যেন ভোগান্তি না হয় এজন্য কুড়িল বিশ্বরোড এলাকা থেকে সাধারণ দিনে ৫০-৬০টি ও ছুটির দিনে দেড় শতাধিক বিআরটিসি বাস থাকবে। যতক্ষণ যাত্রী থাকবে ততক্ষণ বাস থাকবে। আর এবার বাসের ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৫ টাকা। যারা নিজস্ব গাড়ি নিয়ে যেতে চান, তাদের জন্য মেলায় প্রায় ১ হাজার গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা রাখা আছে।

প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মেলা। সাপ্তাহিক বন্ধের দিনগুলোতে রাত ১০টা পর্যন্ত মেলা চলবে। এবারে মেলার প্রবেশমূল্য প্রাপ্তবয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা ও শিশুদের জন্য ২০ টাকা। মেলার টিকিট অনলাইনে কাটলে এক্ষেত্রে ৫০ শতাংশ ছাড় পাবেন। এবারের মেলায় দেশি-বিদেশি মিলে মেলায় মোট ৩৫১টি স্টল, প্যাভিলিয়ন, মিনি প্যাভিলিয়ন থাকছে। গতবার এই সংখ্যা ছিল ২২৫টি।

মেলায় ১০টি দেশের ১৭ প্রতিষ্ঠানের অংশ নিবে আর সেই দেশ গুলো হলো- মালয়েশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া, পাকিস্তান, ভারত, তুরস্ক, সিঙ্গাপুর, হংকং, ইন্দোনেশিয়া, নেপাল ও ইরান।

দেশীয় পণ্যের প্রচার, প্রসার, বিপণন, উৎপাদনে সহায়তার লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরোর যৌথ উদ্যোগে ১৯৯৫ সাল থেকে ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার আয়োজন করা হচ্ছে।

এবার দ্বিতীয়বারের মতো স্থায়ী ভেন্যু বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টারে বাণিজ্যমেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বর্তমানে এটি বাংলাদেশ-চীন এক্সিবিশন সেন্টার নামে পরিচিত। এই এক্সিবিশন সেন্টারটি নির্মাণে মোট ব্যয় হয় ৭৭৩ কোটি টাকা।

যেভাবে বাণিজ্য মেলায় যাবেন:

কুড়িল বিশ্বরোড বাসস্ট্যান্ড থেকে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের দুরত্ব প্রায় ১৬ কিলোমিটার। রাস্তা ফাঁকা থাকলে কুড়িল বিশ্বরোড থেকে মেলায় পৌঁছাতে সময় লাগতে পারে ৫০ মিনিট। আর যানজট থাকলে দেড় ঘণ্টাও লাগতে পারে।

বিআরটিসি বাস ছাড়াও অন্যান্য যাত্রীবাহী বাসে বাণিজ্য মেলায় পৌঁছাতে জনপ্রতি গুনতে হবে ৪০ টাকা। নামতে হবে কাঞ্চনব্রিজে। সেখান থেকে ১০-২০ টাকা রিকশা ভাড়া দিয়ে মেলা প্রাঙ্গণে যেতে পারবেন।