ঢাকা ১১:৪২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেয়ে থেকে ছেলে হওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি :

এক ছাত্রী মেয়ে থেকে ছেলেতে রুপান্তিত হওয়ার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়েছে। গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার ঝাড়াবর্ষা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী সুমনা। হঠাৎ তার শরীরে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। একপর্যায়ে ছেলেতে রূপান্তরিত হয় মেয়েটি। ঘটনা জানাজানি হলে,সুমনাকে একনজর দেখতে মানুষ তার বাড়িতে ভিড় করছে। এ ঘটনায় খুশি সুমনার বাবা- মা। কারণ এ দ¤পতির কোনো ছেলে ছিল না। সাঘাটা উপজেলার ঘুড়িদহ ইউনিয়নের ঝাড়াবর্ষা গ্রামে সুমনার বাড়িতে ভিড় করছে শত শত উৎসুক নারী-পুরুষ। সুমনার দাদি দৌলতন নেছা বলেন, ২৩ মে গত মঙ্গলবার হঠাৎ সুমনা তার শারীরিক পরিবর্তনের কথা তাকে জানায়। সেদিন সে স্কুলেও যায়নি। বিষয়টি কয়েক দিন গোপন থাকলেও শনিবার জানাজানি হলে বাড়িতে মানুষ ভিড় করছে। সুমনার মা লাভলী বেগম বলেন, তিন মেয়ের মধ্যে সুমনা সবার বড়। তার দাদির কাছ থেকে লিঙ্গ পরিবর্তনের বিষয়টি জানতে পেরে প্রথমে বিশ্বাস করিনি। পরে বিশ্বাস করতে বাধ্য হই। সুমনার বাবা সাইদুর রহমান বলেন, মেয়ে ছেলেতে রূপান্তরিত হয়েছে। এটা সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা, তার কুদরত। এতে আমি খুশি। কারণ আমাদের ছেলে ছিল না। আল্লাহ এক মেয়েকে ছেলে বানিয়ে দিয়েছেন। ছেলে হলেও সুমনার নাম কিংবা পোশাক-পরিচ্ছদে এখনও পরিবর্তন হয়নি। সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আরিফুজ্জামান বলেন, ছেলে থেকে মেয়ে আবার মেয়ে থেকে ছেলে রূপান্তরিত হওয়ার ঘটনা ঘটে থাকে। এটা সাধারণত হরমোনজনিত পরিবর্তনের কারণে ঘটে থাকে। সুমনার ক্ষেত্রে সে ধরণের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিস্তারিত জানা যাবে।

ট্যাগস

মেয়ে থেকে ছেলে হওয়ার ঘটনায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি

আপডেট টাইম : ০৮:৩৩:৪১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৮ মে ২০২৩

গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি :

এক ছাত্রী মেয়ে থেকে ছেলেতে রুপান্তিত হওয়ার ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যকর সৃষ্টি হয়েছে। গাইবান্ধার সাঘাটা উপজেলার ঝাড়াবর্ষা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী সুমনা। হঠাৎ তার শরীরে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়। একপর্যায়ে ছেলেতে রূপান্তরিত হয় মেয়েটি। ঘটনা জানাজানি হলে,সুমনাকে একনজর দেখতে মানুষ তার বাড়িতে ভিড় করছে। এ ঘটনায় খুশি সুমনার বাবা- মা। কারণ এ দ¤পতির কোনো ছেলে ছিল না। সাঘাটা উপজেলার ঘুড়িদহ ইউনিয়নের ঝাড়াবর্ষা গ্রামে সুমনার বাড়িতে ভিড় করছে শত শত উৎসুক নারী-পুরুষ। সুমনার দাদি দৌলতন নেছা বলেন, ২৩ মে গত মঙ্গলবার হঠাৎ সুমনা তার শারীরিক পরিবর্তনের কথা তাকে জানায়। সেদিন সে স্কুলেও যায়নি। বিষয়টি কয়েক দিন গোপন থাকলেও শনিবার জানাজানি হলে বাড়িতে মানুষ ভিড় করছে। সুমনার মা লাভলী বেগম বলেন, তিন মেয়ের মধ্যে সুমনা সবার বড়। তার দাদির কাছ থেকে লিঙ্গ পরিবর্তনের বিষয়টি জানতে পেরে প্রথমে বিশ্বাস করিনি। পরে বিশ্বাস করতে বাধ্য হই। সুমনার বাবা সাইদুর রহমান বলেন, মেয়ে ছেলেতে রূপান্তরিত হয়েছে। এটা সৃষ্টিকর্তার ইচ্ছা, তার কুদরত। এতে আমি খুশি। কারণ আমাদের ছেলে ছিল না। আল্লাহ এক মেয়েকে ছেলে বানিয়ে দিয়েছেন। ছেলে হলেও সুমনার নাম কিংবা পোশাক-পরিচ্ছদে এখনও পরিবর্তন হয়নি। সাঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আরিফুজ্জামান বলেন, ছেলে থেকে মেয়ে আবার মেয়ে থেকে ছেলে রূপান্তরিত হওয়ার ঘটনা ঘটে থাকে। এটা সাধারণত হরমোনজনিত পরিবর্তনের কারণে ঘটে থাকে। সুমনার ক্ষেত্রে সে ধরণের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বিস্তারিত জানা যাবে।