ঢাকা ০৫:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
ভূল অসত্য সংবাদ পরিবেশন করায় ব্যবসায়ীর  সংবাদ সম্মেলন কেটালী পাড়ায় দিনে দুপুরে সরকারী কোয়াটারে চুরি জনবান্ধব ভূমি সংস্কারে অগ্রাধিকার দিচ্ছে সরকার: ভূমিমন্ত্রী ভূমি অফিসে যেন কোনো দালাল না থাকে: মন্ত্রী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার শাহীন আলম বিলাশবহুল ৮তলা বাড়ীর মালিক! মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র ‘অপারেশন জ্যাকপট’ নিয়ে এতো অনাসৃষ্টি কেন? চকরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তা ডা: শোভন দত্তের বিরুদ্ধে সরকারী টাকা আত্মসাত,বিদেশে টাকা পাচার,অবৈধ সম্পদ অর্জন ও নারী কেলেংকারীর অভিযোগ! দদুকের তদন্ত থাকা কর্মকর্তাকে চুক্তিভিত্তিক ডিজি নিয়োগের তোড়জোড়! গাজীপুর সিটি করপোরেশনের গাড়িচাপায় শ্রমিক নিহত, মহাসড়ক অবরোধ মির্জাগঞ্জে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও  শহীদ  দিবসে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির শ্রদ্ধা নিবেদন 

রাজধানীতে বাম নেতার কালোথাবায় পুলিশ সদস্যের বাড়ী নির্মাণ কাজ বন্ধ!

স্টাফ রিপোর্টার :
তিনি বেসরকারী পরিবেশবাদী সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপআ) এর জেনারেল সেক্রেটারী ও বামপন্থি দলের নেতা। আর সে কারণেই এলাকায় তার দাপট সীমাহীন। সংগঠনের ক্ষমতার দাপটে ধরাকে সরা জ্ঞান করেন। এলাকায় তার কথাই শেষ কথা। থানা, পুলিশ প্রশাসন এমন কি রাজউক কর্মকর্তারাও তার কথায় ওঠাবসা করেন। এলাকার কোন সালিশ দরবার হলেও তিনি রায় ঘোষণা করেন। কেউ নতুন বাড়ী নির্মাণ করতে গেলেই তিনি পরিবেশ বিষয়ক আইন কানুনের ভয় ভীতি প্রদর্শন করে মোটা অংকের চাঁদা আদায় করেন। তার সংগঠনের নেত্রী সুলতানা কামালের নাম ভাঙিয়ে এহেন অপকর্ম নেই যা তিনি করেন না।
এমন অভিযোগ পাওয়াগেছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপআ) সংগঠনের জেনারেল সেক্রেটারী শরীফ জামিলের বিরুদ্ধে। এ ধরণের একটি ঘটনায় রাজধানীর বাড্ডা থানায় তার বিরুদ্ধে জিডি এন্ট্রি করেছেন জনৈক আবুল কাশেম মিল্কী।
অভিযোগসুত্রে জানাগেছে, রাজধানীর মধ্য বাড্ডা আদর্শ নগর এলাকার অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আবু তাহের মিল্কী তার ক্রয়কৃত ৬৩৪ নং প্লটের ৩কাঠা জমির ওপর ৬ তলা বাড়ী করার জন্য রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ থেকে নকশা পাশসহ অন্যান্য আনুসঙ্গীক কাজ সম্প্ন্ন করে বাড়ী নির্মাণ শুরু করে ২য় তলা পর্যন্ত কাজ সমাপ্ত করার সময় প্রতিবেশী শরীফ জামিল বাড়ী নির্মানে বাধা প্রদান করেন। এবং বলেন বাড়ী নির্মাণ করতে হলে তার শ^শুর বাড়ীতে প্রবেশের রাস্তার জন্য ২ ফুট জমি ছেড়ে দিতে হবে। শুধু তাইই নয় বাড়ীর সীমানা প্রাচীরও ভেঙে ফেলতে হবে। তার কথামত বাড়ী নির্মাণ কাজ বন্ধ করা না হলে প্রথমে তিনি এলাকার সন্ত্রাসীদের দ্বারা ভয়ভীতি দেখান। তাতেও কাজ না হলে তিনি রাজউকের ৪ নং জোনের অথোরাইজড কর্মকর্তা মকিদ এহসানের কাছে গিয়ে নিজেকে বিরাট বাম নেতা ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপআ) এর জেনারেল সেক্রেটারী পরিচয়ে প্রভাব সৃষ্টি করে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন। এখানেই শেষ নয়, তিনি একটি বেসরকারী ব্যাংকে ফোন করেও ওই ব্যাংকের ম্যানেজারকে এই বাড়ী নির্মাণে লোন না দেবার জন্য চাপ সৃষ্টি করেন।
এ বিষয়ে জমির মালিক অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আবু তাহের মিল্কীর পুত্র আবুল কাশেম মিল্কী গত ২৮/০৯/২০২২ ইং তারিখে বাড্ডা থানায় একটি সাধারন ডায়রি করেছেন যার নং ২১২৭। এই ডায়রী করার পর থেকে উক্ত শরীফ জামিল পরিবারটিকে নানাভাবে হয়রানি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছেন। তিনি প্রশাসনের উচ্চ মহলে মিথ্যা তথ্য প্রদান করে ক্ষতিসাধন করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। তার এধরণের কর্মকান্ড গুরুতর ফৌজদারী অপরাধ হলেও সেটি তিনি ধর্তব্যে নিচ্ছেন না।
বাম নেতা শরীফ জামিলের এহেন গর্হিত কর্মকান্ডে আবু তাহের মিল্কীর পরিবার সব সময় আতংকের মধ্যে দিন রাত কাটাচ্ছেন। অন্য দিকে বাড়ী নির্মাণ কাজও দীর্ঘ ৬ মাস বন্ধ রয়েছে। এতেকরে অপুরুনীয় ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে পুলিশ পরিবারটি।
শরীফ জামিলের এধরনের বেআইনী কর্মকান্ডে এলাকাবাসীও বিস্মিত হয়েছেন। তারা প্রশ্ন তুলেছেন শরীফ জামিলের এতো ক্ষমতার উতস কোথায়?
উল্লেখ্য যে, খেঁজ খবর নিয়ে জানাগেছে, তিনি ওই এলাকায় ঘর জামাই থাকেন। তার গ্রামের বাড়ী সিলেট হবিগঞ্জে। তিনি বাড্ডা আদর্শ নগরের যে বাড়ীতে থাকেন সেটি তার শ^শুর আব্দুল মান্নানের নামে। সেই ৪ তলা বাড়ীর রাজউকের কোন অনুমোদন বা নকশা পাশ নেই। অথচ: এই বাড়ীর প্রবেশ পথের জন্য তিনি ২ ফুট জমি দাবী করছেন এবং সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলতে বলছেন।
এ বিষয়ে ৬৩৪ নং প্লটের মালিক আবু তাহের মিল্কীর পুত্র আবুল কাশেম মিল্কীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, দেশটা কি মগের মল্লুক হয়ে গেল? আমরা টাকা দিয়ে জমি কিনেছি। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সমস্ত নিয়ম কানুন পালন করে নকশা পাশ অন্তে বাড়ী নির্মাণ করছি। কোন সরকারী প্রতিষ্ঠান আমাদের নির্মাণ কাজে বাঁধা দিচ্ছে না অথচ: বেসরকারী সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের নেতা শরীফ জামিল বাঁধা প্রদান করছেন কোন আইনে? আমরা কি পরিবেশের কোন আইন ভংগ করেছি? এ বিষয়ে আমরা পরিবেশ আন্দোলন নেত্রী সুলতানা কামাল আংটির দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। একই সাথে আমরা যাতে বাঁধামুক্ত বাড়ী নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারি সেজন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান কামাল ও প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার পদক্ষেপ কামনা করছি।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

ভূল অসত্য সংবাদ পরিবেশন করায় ব্যবসায়ীর  সংবাদ সম্মেলন

রাজধানীতে বাম নেতার কালোথাবায় পুলিশ সদস্যের বাড়ী নির্মাণ কাজ বন্ধ!

আপডেট টাইম : ০৬:৫৮:১২ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৪ জুন ২০২৩

স্টাফ রিপোর্টার :
তিনি বেসরকারী পরিবেশবাদী সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপআ) এর জেনারেল সেক্রেটারী ও বামপন্থি দলের নেতা। আর সে কারণেই এলাকায় তার দাপট সীমাহীন। সংগঠনের ক্ষমতার দাপটে ধরাকে সরা জ্ঞান করেন। এলাকায় তার কথাই শেষ কথা। থানা, পুলিশ প্রশাসন এমন কি রাজউক কর্মকর্তারাও তার কথায় ওঠাবসা করেন। এলাকার কোন সালিশ দরবার হলেও তিনি রায় ঘোষণা করেন। কেউ নতুন বাড়ী নির্মাণ করতে গেলেই তিনি পরিবেশ বিষয়ক আইন কানুনের ভয় ভীতি প্রদর্শন করে মোটা অংকের চাঁদা আদায় করেন। তার সংগঠনের নেত্রী সুলতানা কামালের নাম ভাঙিয়ে এহেন অপকর্ম নেই যা তিনি করেন না।
এমন অভিযোগ পাওয়াগেছে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপআ) সংগঠনের জেনারেল সেক্রেটারী শরীফ জামিলের বিরুদ্ধে। এ ধরণের একটি ঘটনায় রাজধানীর বাড্ডা থানায় তার বিরুদ্ধে জিডি এন্ট্রি করেছেন জনৈক আবুল কাশেম মিল্কী।
অভিযোগসুত্রে জানাগেছে, রাজধানীর মধ্য বাড্ডা আদর্শ নগর এলাকার অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আবু তাহের মিল্কী তার ক্রয়কৃত ৬৩৪ নং প্লটের ৩কাঠা জমির ওপর ৬ তলা বাড়ী করার জন্য রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ থেকে নকশা পাশসহ অন্যান্য আনুসঙ্গীক কাজ সম্প্ন্ন করে বাড়ী নির্মাণ শুরু করে ২য় তলা পর্যন্ত কাজ সমাপ্ত করার সময় প্রতিবেশী শরীফ জামিল বাড়ী নির্মানে বাধা প্রদান করেন। এবং বলেন বাড়ী নির্মাণ করতে হলে তার শ^শুর বাড়ীতে প্রবেশের রাস্তার জন্য ২ ফুট জমি ছেড়ে দিতে হবে। শুধু তাইই নয় বাড়ীর সীমানা প্রাচীরও ভেঙে ফেলতে হবে। তার কথামত বাড়ী নির্মাণ কাজ বন্ধ করা না হলে প্রথমে তিনি এলাকার সন্ত্রাসীদের দ্বারা ভয়ভীতি দেখান। তাতেও কাজ না হলে তিনি রাজউকের ৪ নং জোনের অথোরাইজড কর্মকর্তা মকিদ এহসানের কাছে গিয়ে নিজেকে বিরাট বাম নেতা ও বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপআ) এর জেনারেল সেক্রেটারী পরিচয়ে প্রভাব সৃষ্টি করে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন। এখানেই শেষ নয়, তিনি একটি বেসরকারী ব্যাংকে ফোন করেও ওই ব্যাংকের ম্যানেজারকে এই বাড়ী নির্মাণে লোন না দেবার জন্য চাপ সৃষ্টি করেন।
এ বিষয়ে জমির মালিক অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আবু তাহের মিল্কীর পুত্র আবুল কাশেম মিল্কী গত ২৮/০৯/২০২২ ইং তারিখে বাড্ডা থানায় একটি সাধারন ডায়রি করেছেন যার নং ২১২৭। এই ডায়রী করার পর থেকে উক্ত শরীফ জামিল পরিবারটিকে নানাভাবে হয়রানি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছেন। তিনি প্রশাসনের উচ্চ মহলে মিথ্যা তথ্য প্রদান করে ক্ষতিসাধন করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। তার এধরণের কর্মকান্ড গুরুতর ফৌজদারী অপরাধ হলেও সেটি তিনি ধর্তব্যে নিচ্ছেন না।
বাম নেতা শরীফ জামিলের এহেন গর্হিত কর্মকান্ডে আবু তাহের মিল্কীর পরিবার সব সময় আতংকের মধ্যে দিন রাত কাটাচ্ছেন। অন্য দিকে বাড়ী নির্মাণ কাজও দীর্ঘ ৬ মাস বন্ধ রয়েছে। এতেকরে অপুরুনীয় ক্ষতির সম্মুখিন হচ্ছে পুলিশ পরিবারটি।
শরীফ জামিলের এধরনের বেআইনী কর্মকান্ডে এলাকাবাসীও বিস্মিত হয়েছেন। তারা প্রশ্ন তুলেছেন শরীফ জামিলের এতো ক্ষমতার উতস কোথায়?
উল্লেখ্য যে, খেঁজ খবর নিয়ে জানাগেছে, তিনি ওই এলাকায় ঘর জামাই থাকেন। তার গ্রামের বাড়ী সিলেট হবিগঞ্জে। তিনি বাড্ডা আদর্শ নগরের যে বাড়ীতে থাকেন সেটি তার শ^শুর আব্দুল মান্নানের নামে। সেই ৪ তলা বাড়ীর রাজউকের কোন অনুমোদন বা নকশা পাশ নেই। অথচ: এই বাড়ীর প্রবেশ পথের জন্য তিনি ২ ফুট জমি দাবী করছেন এবং সীমানা প্রাচীর ভেঙে ফেলতে বলছেন।
এ বিষয়ে ৬৩৪ নং প্লটের মালিক আবু তাহের মিল্কীর পুত্র আবুল কাশেম মিল্কীর সাথে কথা বললে তিনি জানান, দেশটা কি মগের মল্লুক হয়ে গেল? আমরা টাকা দিয়ে জমি কিনেছি। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের সমস্ত নিয়ম কানুন পালন করে নকশা পাশ অন্তে বাড়ী নির্মাণ করছি। কোন সরকারী প্রতিষ্ঠান আমাদের নির্মাণ কাজে বাঁধা দিচ্ছে না অথচ: বেসরকারী সংগঠন বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের নেতা শরীফ জামিল বাঁধা প্রদান করছেন কোন আইনে? আমরা কি পরিবেশের কোন আইন ভংগ করেছি? এ বিষয়ে আমরা পরিবেশ আন্দোলন নেত্রী সুলতানা কামাল আংটির দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। একই সাথে আমরা যাতে বাঁধামুক্ত বাড়ী নির্মাণ কাজ শেষ করতে পারি সেজন্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আসাদুজ্জামান খান কামাল ও প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার পদক্ষেপ কামনা করছি।