ঢাকা ০২:৪১ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
দ্বাদশ জাতীয় সংসদের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির তৃতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত ৫ বছরের অধিক প্রেষনে দায়িত্ব পালন করছেন চীফ ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল কবীর! বিআইডব্লিউটিএর অতি: পরিচালক আরিফ উদ্দিনের সম্পদের পাহাড়! শাহআলীতে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যাকারি পলাতক স্বামী গ্রেফতার  অতি:পরিচালক আরিফ উদ্দিন এখন বিআইডব্লিউটিএ‘র অঘোষিত “রাজা”! সাভারে এক ইউপি চেয়ারম্যানের সম্পদের পাহাড়! সিরাজদিখানে মঈনুল হাসান নাহিদকে বিকল্প ধরার সমর্থন মির্জাগঞ্জের ইউ,পি সচিব পরকীয়া প্রেমিকার হত্যাকাণ্ডে পুলিশ হেফাজতে শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় মানুষের ভালবাসায় আমি মুগ্ধ: চেয়ারম্যান প্রার্থী পলাশ মানবতার আড়ালে ভয়ংকর ফয়সাল বাহিনী, পিস্তল ঠেকিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

পল্লবী থানার তিন দারোগার ঘুষ বানিজ্যর ভিডিও ফাঁস!

সোহেল রানা :
ডিএমপি পল্লবীর থানার তিন দারোগার ঘুষ বানিজ্যর নয়া কৌশলের একটি ভিডিও খবর বাংলাদেশ পত্রিকার হাতে আসে। ভিডিও সুত্রে জানা যায় গত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ইং তারিখ রাত অনুমানিক ১১টার সময় মিরপুর-১২ নম্বরে মোল্লাহ মার্কেটে আবস্থিত মদের বার থেকে নামছিলেন একত্রে ৫ বন্ধু, মোঃ হাবিব, সারোয়ার আলম টিপু, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, মোঃ আকবর ও মোঃ সুজন তারা একটি প্রাইভেট গাড়িতে সিরামিকের গেটর নিকট গেলে পল্লবী থানার তিন দারোগা সিরামিকের গেটে আগে থেকে আবস্থান নেন। কিন্তু ওই ৫ বন্ধুর তথ্য দিচ্ছেন পল্লবীর থানার সোর্স জালাল। আর সোর্স জালালের তথ্য মতে পল্লবী থানার তিন দারোগার মধ্যে এসআই শুভ ও তার সঙ্গীও ফোর্স এএসআই ফয়সাল এবং এএসআই শফিকুল সিরামিকের গেটে “ঢাকা মেট্রো-গ, ১৪-৪০৯৯ নম্বরের কালো রংয়ের প্রাইভেট গাড়িটি সিগনাল দিয়ে দাঁড় তরেন। পরে ৫ বন্ধু জানতে চাই আমাদের কেনো দাড় করলেন? এইআই শুভ বলেন আপনারা এই গাড়ী নিয়ে মাদক ব্যবসা করেন আমাদের নিকট অভিযোগ আছে এই বলে তাদের আটোক করেন। আটোকের পর চলে রফাদফা সারোয়ার আলম টিপুকে বলেন আমাদের নিকট থেকে গাড়ী ছাড়িয়ে নিতে হলে আমাদেরকে দিতে হবে ১৫ লাখ টাকা এর পর বলে ৭ লাখ। এর মধ্যে সোর্স জালাল ঘটনা স্থলে হাজির। অবশেষে ২ লাখ ৬০ হাজার টাকায় ঘুষ বানিজ্য মিমাংশা হয়। সোর্স জালাল “সারোয়ার আলম টিপুর” স্ত্রী রুপার নিকট যায় টাকা আনতে। রুপা ওই রাতে তার স্বর্ণ-গহণা বন্ধক রেখে আরো ধার দেনা করে স্বামিকে ছাড়াতে সোর্স জালালের হাতে ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা দেন (তথ্য প্রমাণ ভিডিও ফুটেজ)। কিন্তু টাকা নেয়ার পর ওই সোর্সের সন্ধেহ হয় টাকা দেয়ার ভিডিও করছে সারোয়ার আলম টিপুর স্ত্রী রুপা, পরে সিরামিকের গেটে টাকা নিয়ে আসে এবং সোর্স জালাল, এসআই শুভকে ভিডিওর বিষয়টি জানান তখন তাদের গাড়ীটি ছেড়ে দিলেও তাদের ৫ জনকে মিথ্যা মাদক মামলা দিয়ে জেলে পাঠিয়েদেন। আসামিদের মধ্যে হলেন মিরপুর-১০ নম্বরের মোঃ মজিবরের ছেলে হাবিব (২৫), শাহ আলমের ছেলে সারোয়ার আলম টিপু (২৮), মিরপুর-১১ নম্বরের মৃত আনোয়র হোসেনের ছেলে মোঃ সিরাজুল (২৪), আব্দুল কাদের জিলানীর ছেলে আকবর (২৫) এবং মোঃ আলীর ছেলে সুজন (২৩)। পল্লবী থানার মামলা নং ৪০/৭৪৭, তারিখ-১৪-৯-২০২৩ইং। পরবর্তী সংখ্যায় আরও বিস্তারিত আসছে………।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির তৃতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত

পল্লবী থানার তিন দারোগার ঘুষ বানিজ্যর ভিডিও ফাঁস!

আপডেট টাইম : ০৬:১৮:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

সোহেল রানা :
ডিএমপি পল্লবীর থানার তিন দারোগার ঘুষ বানিজ্যর নয়া কৌশলের একটি ভিডিও খবর বাংলাদেশ পত্রিকার হাতে আসে। ভিডিও সুত্রে জানা যায় গত ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩ইং তারিখ রাত অনুমানিক ১১টার সময় মিরপুর-১২ নম্বরে মোল্লাহ মার্কেটে আবস্থিত মদের বার থেকে নামছিলেন একত্রে ৫ বন্ধু, মোঃ হাবিব, সারোয়ার আলম টিপু, মোঃ সিরাজুল ইসলাম, মোঃ আকবর ও মোঃ সুজন তারা একটি প্রাইভেট গাড়িতে সিরামিকের গেটর নিকট গেলে পল্লবী থানার তিন দারোগা সিরামিকের গেটে আগে থেকে আবস্থান নেন। কিন্তু ওই ৫ বন্ধুর তথ্য দিচ্ছেন পল্লবীর থানার সোর্স জালাল। আর সোর্স জালালের তথ্য মতে পল্লবী থানার তিন দারোগার মধ্যে এসআই শুভ ও তার সঙ্গীও ফোর্স এএসআই ফয়সাল এবং এএসআই শফিকুল সিরামিকের গেটে “ঢাকা মেট্রো-গ, ১৪-৪০৯৯ নম্বরের কালো রংয়ের প্রাইভেট গাড়িটি সিগনাল দিয়ে দাঁড় তরেন। পরে ৫ বন্ধু জানতে চাই আমাদের কেনো দাড় করলেন? এইআই শুভ বলেন আপনারা এই গাড়ী নিয়ে মাদক ব্যবসা করেন আমাদের নিকট অভিযোগ আছে এই বলে তাদের আটোক করেন। আটোকের পর চলে রফাদফা সারোয়ার আলম টিপুকে বলেন আমাদের নিকট থেকে গাড়ী ছাড়িয়ে নিতে হলে আমাদেরকে দিতে হবে ১৫ লাখ টাকা এর পর বলে ৭ লাখ। এর মধ্যে সোর্স জালাল ঘটনা স্থলে হাজির। অবশেষে ২ লাখ ৬০ হাজার টাকায় ঘুষ বানিজ্য মিমাংশা হয়। সোর্স জালাল “সারোয়ার আলম টিপুর” স্ত্রী রুপার নিকট যায় টাকা আনতে। রুপা ওই রাতে তার স্বর্ণ-গহণা বন্ধক রেখে আরো ধার দেনা করে স্বামিকে ছাড়াতে সোর্স জালালের হাতে ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা দেন (তথ্য প্রমাণ ভিডিও ফুটেজ)। কিন্তু টাকা নেয়ার পর ওই সোর্সের সন্ধেহ হয় টাকা দেয়ার ভিডিও করছে সারোয়ার আলম টিপুর স্ত্রী রুপা, পরে সিরামিকের গেটে টাকা নিয়ে আসে এবং সোর্স জালাল, এসআই শুভকে ভিডিওর বিষয়টি জানান তখন তাদের গাড়ীটি ছেড়ে দিলেও তাদের ৫ জনকে মিথ্যা মাদক মামলা দিয়ে জেলে পাঠিয়েদেন। আসামিদের মধ্যে হলেন মিরপুর-১০ নম্বরের মোঃ মজিবরের ছেলে হাবিব (২৫), শাহ আলমের ছেলে সারোয়ার আলম টিপু (২৮), মিরপুর-১১ নম্বরের মৃত আনোয়র হোসেনের ছেলে মোঃ সিরাজুল (২৪), আব্দুল কাদের জিলানীর ছেলে আকবর (২৫) এবং মোঃ আলীর ছেলে সুজন (২৩)। পল্লবী থানার মামলা নং ৪০/৭৪৭, তারিখ-১৪-৯-২০২৩ইং। পরবর্তী সংখ্যায় আরও বিস্তারিত আসছে………।