ঢাকা ০৩:১২ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
দ্বাদশ জাতীয় সংসদের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির তৃতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত ৫ বছরের অধিক প্রেষনে দায়িত্ব পালন করছেন চীফ ইঞ্জিনিয়ার মঞ্জুরুল কবীর! বিআইডব্লিউটিএর অতি: পরিচালক আরিফ উদ্দিনের সম্পদের পাহাড়! শাহআলীতে গৃহবধূকে গলা কেটে হত্যাকারি পলাতক স্বামী গ্রেফতার  অতি:পরিচালক আরিফ উদ্দিন এখন বিআইডব্লিউটিএ‘র অঘোষিত “রাজা”! সাভারে এক ইউপি চেয়ারম্যানের সম্পদের পাহাড়! সিরাজদিখানে মঈনুল হাসান নাহিদকে বিকল্প ধরার সমর্থন মির্জাগঞ্জের ইউ,পি সচিব পরকীয়া প্রেমিকার হত্যাকাণ্ডে পুলিশ হেফাজতে শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় মানুষের ভালবাসায় আমি মুগ্ধ: চেয়ারম্যান প্রার্থী পলাশ মানবতার আড়ালে ভয়ংকর ফয়সাল বাহিনী, পিস্তল ঠেকিয়ে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ

মিরপুর-১ নম্বর ছিনতাইকারীদের অভয়ারণ্য 

মো. জসিম উদ্দিন :
রাজধানীর মিরপুর-১ নম্বর বাস ষ্ট্যান্ড ও শপিংমার্কেট গুলো এখন ছিনতাইকারী চক্রের অভয়ারণ্য। দিনে দুপুরে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। সন্ধ্যার পর অন্ধকার রাস্তায় যার ভয়াবহতা বাড়ে আরো কয়েক গুণ। পুরুষ ছিনতাইকারীদের পাশাপাশি মহিলা ছিনতাইকারী চক্রের তৎপরতাও রয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশের অবহেলার জন্য অপরাধ প্রবণতা বাড়ার কারণ।
মিরপুর-১ নম্বরে ১০/১২টি শপিংমার্কেটে নেই কোন স্থায়ী পুলিশের ডিউটি। এ ছাড়া বিদ্যুৎ চলে গেলে অন্ধকারের কয়েক মিনিটের মধ্যে ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বাড়ে কয়েকগুণ।
যার ফলে মার্কেটে আসা লোকজনের মোবাইল, টাকা-পঁয়সা ও স্বর্ণলঙ্কার ছিনতাই করছে। প্রতিদিনই একাধিক ব্যাক্তির দামি মোবাইল সেট ও টাকা-পয়সা খোয়া যাচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে একজন বলেন, ‘একদিন এক লোককে ধরে চরম ভাবে মারছে, তার কাছে টাকা ছিলো সেগুলো নিয়ে গেছে এবং সাথে থাকা মোবাইল ফোনও নিয়ে গেছে।’
পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বলেন, স্থায়ী কোন নিরাপত্তা ব্যবস্থা না থাকলেও সার্বক্ষণিক টহল দলের মাধ্যমে সব সময় কড়া নজরদারি করা হচ্ছে।

ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

দ্বাদশ জাতীয় সংসদের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির তৃতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত

মিরপুর-১ নম্বর ছিনতাইকারীদের অভয়ারণ্য 

আপডেট টাইম : ০৭:২৩:০৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর ২০২৩

মো. জসিম উদ্দিন :
রাজধানীর মিরপুর-১ নম্বর বাস ষ্ট্যান্ড ও শপিংমার্কেট গুলো এখন ছিনতাইকারী চক্রের অভয়ারণ্য। দিনে দুপুরে ছিনতাইকারীর কবলে পড়ে সর্বস্ব হারাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। সন্ধ্যার পর অন্ধকার রাস্তায় যার ভয়াবহতা বাড়ে আরো কয়েক গুণ। পুরুষ ছিনতাইকারীদের পাশাপাশি মহিলা ছিনতাইকারী চক্রের তৎপরতাও রয়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশের অবহেলার জন্য অপরাধ প্রবণতা বাড়ার কারণ।
মিরপুর-১ নম্বরে ১০/১২টি শপিংমার্কেটে নেই কোন স্থায়ী পুলিশের ডিউটি। এ ছাড়া বিদ্যুৎ চলে গেলে অন্ধকারের কয়েক মিনিটের মধ্যে ছিনতাইকারীদের তৎপরতা বাড়ে কয়েকগুণ।
যার ফলে মার্কেটে আসা লোকজনের মোবাইল, টাকা-পঁয়সা ও স্বর্ণলঙ্কার ছিনতাই করছে। প্রতিদিনই একাধিক ব্যাক্তির দামি মোবাইল সেট ও টাকা-পয়সা খোয়া যাচ্ছে।
এ প্রসঙ্গে একজন বলেন, ‘একদিন এক লোককে ধরে চরম ভাবে মারছে, তার কাছে টাকা ছিলো সেগুলো নিয়ে গেছে এবং সাথে থাকা মোবাইল ফোনও নিয়ে গেছে।’
পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বলেন, স্থায়ী কোন নিরাপত্তা ব্যবস্থা না থাকলেও সার্বক্ষণিক টহল দলের মাধ্যমে সব সময় কড়া নজরদারি করা হচ্ছে।