ঢাকা ০৪:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
আদমদীঘিতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ: গ্রেফতার-১ মহম্মদপুরে হত্যার মামলার আসামি জামিনে এসে বাদিকে মামলা তুলে নেয়ার হুমকি, পরে মারধর আ.লীগ নেতার হুমকিতে নিরাপত্তাহীনতায় আইসক্রিম ফাক্টরি মালিক কালিহাতীতে লিঙ্গ কাটার অভিযোগ স্ত্রী’র বিরুদ্ধে ফিটনেস বিহীন নৌযানে সয়লাব সদরঘাট,নেই পর্যাপ্ত দক্ষ নাবিক! ৫০ কোটি টাকার মামলা থেকে বাঁচতে প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার পাল্টা মামলা! ফরিদপুরে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় তোলপাড় রশুনিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের পরিচালনা পর্ষদের নব সভাপতি হলেন আবু সাঈদ মির্জাগঞ্জে আমর্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) উদ্যোগে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ মাগুরার হৃদয়পুরে ফসলি জমির টপসয়েল মাটিকাটার অভিযোগ, ইউএনওর হস্তক্ষেপে কাজ বন্ধ

পটুয়াখালীতে অস্ত্র গুলি ও বিপুল পরিমাণ চোরাই মালামালসহ কুখ্যাত চোর মুন্না আটক

পটুয়াখালীতে পটুয়াখালীতে অস্ত্র ও গুলি এবং বিপুল পরিমাণ চোরাই মালামালসহ কুখ্যাত চোর মোঃ মনিরুজ্জামান মুন্না কে আটক করেছে পুলিশ।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এ্যান্ড অপ্স) রফিউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়ের, পিপিএম
পটুয়াখালী জানান, গত ৫ই নভেম্বর থেকে ১৯শে নভেম্বর- ২০২৩ ইং পটুয়াখালী সদরের আরামবাগ এলাকার বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত কাস্টমস অফিসার একেএম কবির উদ্দিন (৭২) এর বসত ঘরের পিছনের দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে স্টীলের আলমারি ভেঙ্গে আলমারির লকারে থাকা লাইসেন্সকৃত ১টি পিস্তল, ১টি শর্টগান (এসবিবিএল), ১টি রিভলভার (সদৃশ) অস্ত্র, ১ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, শর্টগান (এসবিবিএল) এর ৪১ রাউন্ড কার্তুজ এবং ঘরে রক্ষিত বিপুল পরিমান মালামাল চুরি হয়। যা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।
যাহার দরুন পুলিশ খবর পেয়ে সাথে সাথে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিভিন্ন তথ্য, উপাত্ত, আলামত সংগ্রহ পূর্বক ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য তৎপর হন। পরে অবসরপ্রাপ্ত কাস্টমস অফিসার একেএম কবির উদ্দিন বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
তারই ধারাবাহিকতায় সদর থানার একটি চৌকস পুলিশের টিম সোমবার (২০শে নভেম্বর) সারারাত ব্যাপী অভিযান চালিয়ে পটুয়াখালীর আরামবাগ এলাকা হতে ঘটনার সাথে জড়িত মোঃ মনিরুজ্জামান মুন্না (৪৪), পিতা-মতিউর রহমান, সাং-পূর্ব আরামবাগ, ০৪ নং ওয়ার্ড, পটুয়াখালী পৌরসভাকে আটক করতে সক্ষম হয়। এবং চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধার করা হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত আসামী মনিরুজ্জামান মুন্না স্বীকার করে আরো জানান যে, সে পূর্বে কাঠমিস্ত্রীর কাজসহ বিভিন্ন পেশায় জড়িত ছিলো এবং বর্তমানে সে একটি প্রতিষ্ঠানের ডে-গার্ড হিসেবে মাষ্টাররোলে চাকুরী করেন।
এবিষয়ে আটককৃত আসামীকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ এবং মামলার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ঘটনার সাথে আরো জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলমান রয়েছে বলে জানা গেছে। গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জোর চেষ্টা চলমান রয়েছে।
ট্যাগস
জনপ্রিয় সংবাদ

আদমদীঘিতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ: গ্রেফতার-১

পটুয়াখালীতে অস্ত্র গুলি ও বিপুল পরিমাণ চোরাই মালামালসহ কুখ্যাত চোর মুন্না আটক

আপডেট টাইম : ০৬:৫৭:০৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২২ নভেম্বর ২০২৩
পটুয়াখালীতে পটুয়াখালীতে অস্ত্র ও গুলি এবং বিপুল পরিমাণ চোরাই মালামালসহ কুখ্যাত চোর মোঃ মনিরুজ্জামান মুন্না কে আটক করেছে পুলিশ।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম এ্যান্ড অপ্স) রফিউদ্দিন মোহাম্মদ যোবায়ের, পিপিএম
পটুয়াখালী জানান, গত ৫ই নভেম্বর থেকে ১৯শে নভেম্বর- ২০২৩ ইং পটুয়াখালী সদরের আরামবাগ এলাকার বাসিন্দা অবসরপ্রাপ্ত কাস্টমস অফিসার একেএম কবির উদ্দিন (৭২) এর বসত ঘরের পিছনের দরজা ভেঙ্গে ঘরে ঢুকে স্টীলের আলমারি ভেঙ্গে আলমারির লকারে থাকা লাইসেন্সকৃত ১টি পিস্তল, ১টি শর্টগান (এসবিবিএল), ১টি রিভলভার (সদৃশ) অস্ত্র, ১ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, শর্টগান (এসবিবিএল) এর ৪১ রাউন্ড কার্তুজ এবং ঘরে রক্ষিত বিপুল পরিমান মালামাল চুরি হয়। যা এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।
যাহার দরুন পুলিশ খবর পেয়ে সাথে সাথে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বিভিন্ন তথ্য, উপাত্ত, আলামত সংগ্রহ পূর্বক ঘটনার মূল রহস্য উদঘাটনের জন্য তৎপর হন। পরে অবসরপ্রাপ্ত কাস্টমস অফিসার একেএম কবির উদ্দিন বাদী হয়ে সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
তারই ধারাবাহিকতায় সদর থানার একটি চৌকস পুলিশের টিম সোমবার (২০শে নভেম্বর) সারারাত ব্যাপী অভিযান চালিয়ে পটুয়াখালীর আরামবাগ এলাকা হতে ঘটনার সাথে জড়িত মোঃ মনিরুজ্জামান মুন্না (৪৪), পিতা-মতিউর রহমান, সাং-পূর্ব আরামবাগ, ০৪ নং ওয়ার্ড, পটুয়াখালী পৌরসভাকে আটক করতে সক্ষম হয়। এবং চুরি যাওয়া মালামাল উদ্ধার করা হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃত আসামী মনিরুজ্জামান মুন্না স্বীকার করে আরো জানান যে, সে পূর্বে কাঠমিস্ত্রীর কাজসহ বিভিন্ন পেশায় জড়িত ছিলো এবং বর্তমানে সে একটি প্রতিষ্ঠানের ডে-গার্ড হিসেবে মাষ্টাররোলে চাকুরী করেন।
এবিষয়ে আটককৃত আসামীকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ এবং মামলার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। ঘটনার সাথে আরো জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলমান রয়েছে বলে জানা গেছে। গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার জোর চেষ্টা চলমান রয়েছে।