ঢাকা ০৭:০৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
মির্জাগঞ্জে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও  শহীদ  দিবসে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির শ্রদ্ধা নিবেদন  ৫২’র ভাষা শহীদদের প্রতি মিরপুর রিপোর্টার্স ক্লাবের শ্রদ্ধা নিবেদন প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরকে দুর্নীতির স্বর্গরাজ্যে পরিণত করেছেন ডিজি ডা: মো: এমদাদুল হক তালুকদার! বাসাবো এলাকায় রাজউকের উচ্ছেদ অভিযান; ৪ লক্ষ টাকা জরিমানা দুই সাব-রেজিস্ট্রারের বদলী উপলক্ষে বিদায় সংবর্ধনা দুর্নীতির বিরুদ্ধে শূন্য সহনশীল হবেন দুদক কর্মকর্তারা বলিষ্ঠ নেতৃত্বের মাধ্যমে ভূমি অফিস পরিচালনা করুন: ভূমিমন্ত্রী বাসাবো এলাকায় রাজউকের উচ্ছেদ অভিযান; ৪ লক্ষ টাকা জরিমানা মাগুরায় মাদরাসার সভাপতির ধমকে সুপার অজ্ঞান  মাগুরায় সাকিবের পৃষ্ঠপোষকতায় মহান একুশ উপলক্ষে শহরে আলপনার উদ্যোগ 

সাইফ আলি খানের দাড়ি বাদ দিতে খরচ হবে ৩০ কোটি টাকা

অনলাইন ডেস্ক:

বিতর্কের চোটে এবার বাদ যাবে সইফ আলি খানের দাড়ি! না, রিয়েল লাইফে নয়। বরং রিল লাইফে এবার এমনটাই ঘটতে চলেছে।

প্রভাস ও সইফ আলি খান অভিনীত ‘আদিপুরুষ’ ছবির টিজার প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন ছবির পরিচালক ওম রাউত। রাবণের হাস্যকর রূপ এবং দুর্বল ভিএফএক্স দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা ঠাট্টা শুরু। তবে শুধু ঠাট্টা নয়, সম্প্রতি রামমন্দিরের প্রধান পুরোহিতও রাবণের রূপ দেখে তার সঙ্গে মুঘল শাসকের তুলনা করেছেন। কেউ কেউ তো সইফের রাবণের রূপের সঙ্গে বাবর ও আলাউদ্দিন খিলজির মিলও খুঁজে পাচ্ছেন। এমনকী, ছবি নিষিদ্ধ করার ডাকও তুলেছিল রামমন্দিরের প্রধান পুরোহিত।

সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, ছবি নিয়ে নির্মাতারা আশাবাদী। কিন্তু বিতর্কের কারণে ভিএফএক্স-এর কাজ তাঁদের নতুন করে করতে হচ্ছে। শুধু সইফ নয়, ছবির আরও কিছু চরিত্রকে নতুন করে তৈরি করার কথা ভেবেছেন তাঁরা। ফলে পোস্ট প্রডাকশনের খরচ বেড়েছে আরও। খবর অনুযায়ী, ভুল সংশোধন করতে এখন প্রযোজনা সংস্থাকে খরচ করতে হবে ৩০ কোটি টাকা!

বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলেছিলেন ছবির পরিচালত ওম রাউতও। তাঁর কথায়, ”রাবণ তো আসলে শয়তানের প্রতিরূপ। শয়তানদের তো এরকমই দেখতে হয়। শয়তানের চোখে লালসা থাকে। ঠিক যেমন রাবণের। আদিপুরুষে এরকমই রাবণকে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। আমাদের এতদিন ধরে দেখে আসা রাবণের থেকে অনেকাংশেই আলাদা এই রূপ। এটাই আমাদের চ্যালেঞ্জ ছিল। এই নিয়ে অযথা বিতর্কের মনে হয় প্রয়োজন নেই।’ ওম আরও জানালেন, ”সব সমালোচনা কানে এসেছে। সব কিছুই মাথায় রেখে এগোচ্ছি। যাঁরা এই ছবির টিজার দেখে সমালোচনা করছেন, তাঁদের বলব, ছবিটা পুরো দেখুন। হতাশ হবেন না।”

অন্যদিকে, রাজ ঠাকরের মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার সদস্যরা একেবারেই মেনে নিচ্ছেন না আদিপুরুষ ছবি নিয়ে তৈরি হওয়া বিতর্ককে। মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার নেতা আমেয়া খোপকার জানান, ‘যে বিজেপি নেতারা আদিপুরুষকে নিয়ে বিতর্ক করছেন, তাঁরা কি বাস্তবে রাবণকে দেখেছেন? তাঁদের কাছে কি রাবণের কোনও ছবি আছে? পরিচালককে সবসময়ই তাঁর সৃষ্টির ক্ষেত্রে স্বাধীনতা দেওয়া উচিত। পরিচালক ওম হিন্দুত্ববাদে বিশ্বাসী। সে কখনওই রামায়ণের ভুল ব্যাখ্যা করবেন না।’

মির্জাগঞ্জে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও  শহীদ  দিবসে বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির শ্রদ্ধা নিবেদন 

সাইফ আলি খানের দাড়ি বাদ দিতে খরচ হবে ৩০ কোটি টাকা

আপডেট টাইম : ০৭:৪৪:২১ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৫ নভেম্বর ২০২২

অনলাইন ডেস্ক:

বিতর্কের চোটে এবার বাদ যাবে সইফ আলি খানের দাড়ি! না, রিয়েল লাইফে নয়। বরং রিল লাইফে এবার এমনটাই ঘটতে চলেছে।

প্রভাস ও সইফ আলি খান অভিনীত ‘আদিপুরুষ’ ছবির টিজার প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েছেন ছবির পরিচালক ওম রাউত। রাবণের হাস্যকর রূপ এবং দুর্বল ভিএফএক্স দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় নানা ঠাট্টা শুরু। তবে শুধু ঠাট্টা নয়, সম্প্রতি রামমন্দিরের প্রধান পুরোহিতও রাবণের রূপ দেখে তার সঙ্গে মুঘল শাসকের তুলনা করেছেন। কেউ কেউ তো সইফের রাবণের রূপের সঙ্গে বাবর ও আলাউদ্দিন খিলজির মিলও খুঁজে পাচ্ছেন। এমনকী, ছবি নিষিদ্ধ করার ডাকও তুলেছিল রামমন্দিরের প্রধান পুরোহিত।

সূত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, ছবি নিয়ে নির্মাতারা আশাবাদী। কিন্তু বিতর্কের কারণে ভিএফএক্স-এর কাজ তাঁদের নতুন করে করতে হচ্ছে। শুধু সইফ নয়, ছবির আরও কিছু চরিত্রকে নতুন করে তৈরি করার কথা ভেবেছেন তাঁরা। ফলে পোস্ট প্রডাকশনের খরচ বেড়েছে আরও। খবর অনুযায়ী, ভুল সংশোধন করতে এখন প্রযোজনা সংস্থাকে খরচ করতে হবে ৩০ কোটি টাকা!

বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলেছিলেন ছবির পরিচালত ওম রাউতও। তাঁর কথায়, ”রাবণ তো আসলে শয়তানের প্রতিরূপ। শয়তানদের তো এরকমই দেখতে হয়। শয়তানের চোখে লালসা থাকে। ঠিক যেমন রাবণের। আদিপুরুষে এরকমই রাবণকে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে। আমাদের এতদিন ধরে দেখে আসা রাবণের থেকে অনেকাংশেই আলাদা এই রূপ। এটাই আমাদের চ্যালেঞ্জ ছিল। এই নিয়ে অযথা বিতর্কের মনে হয় প্রয়োজন নেই।’ ওম আরও জানালেন, ”সব সমালোচনা কানে এসেছে। সব কিছুই মাথায় রেখে এগোচ্ছি। যাঁরা এই ছবির টিজার দেখে সমালোচনা করছেন, তাঁদের বলব, ছবিটা পুরো দেখুন। হতাশ হবেন না।”

অন্যদিকে, রাজ ঠাকরের মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার সদস্যরা একেবারেই মেনে নিচ্ছেন না আদিপুরুষ ছবি নিয়ে তৈরি হওয়া বিতর্ককে। মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার নেতা আমেয়া খোপকার জানান, ‘যে বিজেপি নেতারা আদিপুরুষকে নিয়ে বিতর্ক করছেন, তাঁরা কি বাস্তবে রাবণকে দেখেছেন? তাঁদের কাছে কি রাবণের কোনও ছবি আছে? পরিচালককে সবসময়ই তাঁর সৃষ্টির ক্ষেত্রে স্বাধীনতা দেওয়া উচিত। পরিচালক ওম হিন্দুত্ববাদে বিশ্বাসী। সে কখনওই রামায়ণের ভুল ব্যাখ্যা করবেন না।’