ঢাকা ০৮:০৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
শিরোনাম :
ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে বাড্ডা থানার অপরাধীদের আতঙ্কের নাম ওসি ইয়াসীন গাজী কুমিল্লা সাংবাদিক ফোরাম, ঢাকা’র নেতৃত্বে সাজ্জাদ-মোশাররফ স্বামীকে বটি দিয়ে কুপিয়ে খুন করে থানায় স্ত্রীর আত্মসমর্পণ কোটালীপাড়ায় তিন দিনব্যাপী কবি সুকান্ত মেলার উদ্বোধন বেইলি রোডে আগুনে নিহত ৪৬ জয়পুরহাটে ৭ মামলার কুখ্যাত সন্ত্রাসী অস্ত্র ও মাদকসহ র‍্যাবের জালে আটক উপজেলা নির্বাহী অফিসার আজিম উদ্দিনের কোলে শিশু মো. লাকিত হোসেন ধর্ষণ মামলার প্রধান একমাত্র পলাতক আসামি অবশেষে আটক মির্জাগঞ্জে দরিদ্র এক নিঃসন্তান বৃদ্ধের খড়ের গাদায় অগ্নিকাণ্ড

মৃত্যুঞ্জয়ী সেই নয়ন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য সচিব নির্বাচিত, মহম্মদপুরে মিষ্টি বিতরণ

মোঃ মাসুদ রানা, মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি :

২০১৬ সালে পুলিশ অস্ত্র ঠেকিয়ে পাঁচ রাউন্ড গুলি করে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নিহত ভেবে ফেলে রাখা হয় তৎকালীন ছাত্রদল নেতা রবিউল ইসলাম নয়নকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য সচিব মনোনিত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার রাতে যুবদলের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন স্বাক্ষরিত এ কমিটি অনুমোদন হয়। রবিউল ইসলাম নয়ন মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়নের পানিঘাটা গ্রামের আক্কাস শেখের ছেলে।

এ দিকে কমিটি অনুমোদনের খবর শোনার পরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রবিউল ইসলাম নয়নকে শত শত নেতাকর্মীরা তাদের নিজের ফেসবুক একাউন্ট থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এছাড়া তার নিজ জন্মভুমি মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলা যুবদলের নেতাকর্মীদের মাঝে আনন্দ বিরাজ করে। পরে নেতাকর্মীরা একে অপরকে মিষ্টি খাইয়ে দেন এবং বিভিন্ন দোকানদার ও সাধারণ মানুষের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করেন। এ ছাড়া মাগুরা জেলা যুবদলের সভাপতি ওয়াশিকুর রহমান কল্লোল ও সাধারন সম্পাদক মো: ফিরোজ আহম্মেদের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ, সদর উপজেলা যুবদলের আহবায়ক কুতুব উদ্দিন রানা, সিনিয়ার যুগ্ম আহবায়ক আমিনুজ্জামান ও সদস্য সচিব মানিক মিয়ার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ, শালিখা উপজেলা যুবদলের মো: ফরিদ বিশ^াস ও সদস্য সচিব তোফানের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ এবং শ্রীপুর উপজেলা যুবদলের আহবায়ক সোহেল মুন্সি ও সদস্য সচিব নয়নুজ্জামানের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেন।

মহম্মদপুর উপজেলার কয়েকজন বিএনপির নেতাকর্মীরা জানান, অবৈধ আওয়ামী সরকার পুলিশ বাহিনী ধারা নয়ন বার বার শারিরিক ও কারা নির্যাতিত হয়। তৃণমূল থেকে বেড়ে উঠা জিয়াউর রহমানের আর্দশিক সৈনিক তিনি। তিনি স্কুল জীবন শেষ করে ঢাকা গিয়ে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে জড়িত হন। তখন় তিনি ঢাকা মহানগর উত্তর ৪৭ নম্বর ওয়ার্ড, মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রদলের যুগ্ন আহবায়ক হন। পরবর্তীতে সরকার বিরোধী আন্দলোনে ব্যাপক ভ’মিকা এবং তার বিচক্ষণতা সাহসী নেতৃত্বের কারনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান পর্যায়ক্রমে ঢাকা মহানগর পূর্ব ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক, মহানগর দক্ষিণ যুদলের যুগ্ম আহবায়ক, কেন্দ্রীয় যুবদলের সদস্য ও মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য সচিব মনোনিত করেন।

রবিউল ইসলাম নয়ন জানান, অবৈধ আওয়ামী সরকারকে হঠাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার কারণে ১৯ বার কারাবরণ করেছি। আমার নামে ২০৬টি মামলা মিথ্যা মামলা দিয়েছে। ২০১৬ সাথে মগবাজার মোড় থেকে পুলিশ ধরে একটি হোটেলে নিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে পাঁচটি গুলি করে এবং অমানবিক নির্যাতন করে মৃত ভেবে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ফেলে রেখেছিল। পরে স্থানীয়ও লোকজন আমাকে উদ্ধার চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে। একটু সুস্থ হওয়ার হাসপাতাল থেকে পুলিশ আবার গ্রেফতার করে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নিয়ে হাতপায়ের নখ উপড়ে ফেলে, শিং মাছের ভিতরে ভিজিয়ে রাখে এবং প্রসাবের রাস্তায় ইট ঝুলিয়ে রাখে। এছাড়া কত রকম শারিরীক মানুষিক নির্যাতন করেছেন তার কোন শেষ নেই। সব কিছুই হয়েছে শুধু রাজনীতির করার কারনে। আগামীর রাষ্ট্রনায়ক দেশনায়ক তারেক রহমান আমাকে মূল্যায়ন করেছেন। আমি তার কাছে চির কৃতজ্ঞ হয়ে গেলাম। তার দেওয়া অর্পিত দায়িত্ব জীবন দিয়ে হলেও রক্ষা করবো।

ট্যাগস

ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির অভিযোগ স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতির বিরুদ্ধে

মৃত্যুঞ্জয়ী সেই নয়ন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য সচিব নির্বাচিত, মহম্মদপুরে মিষ্টি বিতরণ

আপডেট টাইম : ১০:৫০:৪৭ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১০ অগাস্ট ২০২৩

মোঃ মাসুদ রানা, মহম্মদপুর (মাগুরা) প্রতিনিধি :

২০১৬ সালে পুলিশ অস্ত্র ঠেকিয়ে পাঁচ রাউন্ড গুলি করে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নিহত ভেবে ফেলে রাখা হয় তৎকালীন ছাত্রদল নেতা রবিউল ইসলাম নয়নকে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য সচিব মনোনিত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার রাতে যুবদলের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন স্বাক্ষরিত এ কমিটি অনুমোদন হয়। রবিউল ইসলাম নয়ন মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়নের পানিঘাটা গ্রামের আক্কাস শেখের ছেলে।

এ দিকে কমিটি অনুমোদনের খবর শোনার পরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রবিউল ইসলাম নয়নকে শত শত নেতাকর্মীরা তাদের নিজের ফেসবুক একাউন্ট থেকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানান। এছাড়া তার নিজ জন্মভুমি মাগুরা জেলার মহম্মদপুর উপজেলা যুবদলের নেতাকর্মীদের মাঝে আনন্দ বিরাজ করে। পরে নেতাকর্মীরা একে অপরকে মিষ্টি খাইয়ে দেন এবং বিভিন্ন দোকানদার ও সাধারণ মানুষের মধ্যে মিষ্টি বিতরণ করেন। এ ছাড়া মাগুরা জেলা যুবদলের সভাপতি ওয়াশিকুর রহমান কল্লোল ও সাধারন সম্পাদক মো: ফিরোজ আহম্মেদের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ, সদর উপজেলা যুবদলের আহবায়ক কুতুব উদ্দিন রানা, সিনিয়ার যুগ্ম আহবায়ক আমিনুজ্জামান ও সদস্য সচিব মানিক মিয়ার নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ, শালিখা উপজেলা যুবদলের মো: ফরিদ বিশ^াস ও সদস্য সচিব তোফানের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ এবং শ্রীপুর উপজেলা যুবদলের আহবায়ক সোহেল মুন্সি ও সদস্য সচিব নয়নুজ্জামানের নেতৃত্বে আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করেন।

মহম্মদপুর উপজেলার কয়েকজন বিএনপির নেতাকর্মীরা জানান, অবৈধ আওয়ামী সরকার পুলিশ বাহিনী ধারা নয়ন বার বার শারিরিক ও কারা নির্যাতিত হয়। তৃণমূল থেকে বেড়ে উঠা জিয়াউর রহমানের আর্দশিক সৈনিক তিনি। তিনি স্কুল জীবন শেষ করে ঢাকা গিয়ে ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে জড়িত হন। তখন় তিনি ঢাকা মহানগর উত্তর ৪৭ নম্বর ওয়ার্ড, মোহাম্মদপুর থানা ছাত্রদলের যুগ্ন আহবায়ক হন। পরবর্তীতে সরকার বিরোধী আন্দলোনে ব্যাপক ভ’মিকা এবং তার বিচক্ষণতা সাহসী নেতৃত্বের কারনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান পর্যায়ক্রমে ঢাকা মহানগর পূর্ব ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক, মহানগর দক্ষিণ যুদলের যুগ্ম আহবায়ক, কেন্দ্রীয় যুবদলের সদস্য ও মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সদস্য সচিব মনোনিত করেন।

রবিউল ইসলাম নয়ন জানান, অবৈধ আওয়ামী সরকারকে হঠাতে সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়ার কারণে ১৯ বার কারাবরণ করেছি। আমার নামে ২০৬টি মামলা মিথ্যা মামলা দিয়েছে। ২০১৬ সাথে মগবাজার মোড় থেকে পুলিশ ধরে একটি হোটেলে নিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে পাঁচটি গুলি করে এবং অমানবিক নির্যাতন করে মৃত ভেবে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ফেলে রেখেছিল। পরে স্থানীয়ও লোকজন আমাকে উদ্ধার চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করে। একটু সুস্থ হওয়ার হাসপাতাল থেকে পুলিশ আবার গ্রেফতার করে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে নিয়ে হাতপায়ের নখ উপড়ে ফেলে, শিং মাছের ভিতরে ভিজিয়ে রাখে এবং প্রসাবের রাস্তায় ইট ঝুলিয়ে রাখে। এছাড়া কত রকম শারিরীক মানুষিক নির্যাতন করেছেন তার কোন শেষ নেই। সব কিছুই হয়েছে শুধু রাজনীতির করার কারনে। আগামীর রাষ্ট্রনায়ক দেশনায়ক তারেক রহমান আমাকে মূল্যায়ন করেছেন। আমি তার কাছে চির কৃতজ্ঞ হয়ে গেলাম। তার দেওয়া অর্পিত দায়িত্ব জীবন দিয়ে হলেও রক্ষা করবো।